বৃহস্পতিবার প্রস্তুত সিলেট ঐতিহাসিক আলিয়া মাঠে আওয়ামীলীগের সম্মেলন

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ৩:৫৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩, ২০১৯

ডায়ালসিলেট ডেস্ক:: সিলেটে এই প্রথম ঐতিহাসিক আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে দীর্ঘ ৮ বছর কমিটি থাকার পর আগামী ৫ ডিসেম্বর সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়াামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

এ সম্মেলনকে ঘিরে ইতোমধ্যে প্রস্তুতি প্রায় শেষ পর্যায়ে জোরে সুরে কাজ চলছে। একইসাথে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে আনন্দ-উচ্ছাস দেখা দিয়েছে। দীর্ঘদিন পর জেলা ও মহানগরের সম্মেলন হওয়ায় প্রস্তুতি নিচ্ছেন আওয়ামী লীগের পদপত্যাশী অনেক শীর্ষ নেতারাও।

এদিকে সম্মেলনকে ঘিরে নগরীর বিভিন্ন স্থানে সাজসজ্জায় সজ্জিত পছন্দের নেতাদের ছবি দিয়ে টাঙ্গানো হয়েছে ব্যানার ও ফেস্টুন ।

জেলা আওয়াামী লীগের সম্মেলনে সভাপতি পদে আলোচনায় রয়েছেন বর্তমান জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী ঠিক একই আলোচনায় সভাপতি প্রার্থী হিসেবে পিছিয়ে নেই জেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান সহ-সভাপতি ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আশফাক আহমদও। নেতারা বলেন ,পছন্দ- অপছন্দ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা হাতে
তিনি যাকে পদ দিবেন তাকে নিয়েই কাজ করার অঙ্গিকার ব্যক্ত করেন তারা। একইভাবে সাবেক ছাত্রনেতাদের মধ্যে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় রয়েছেন সুজাত আলী রফিক, এডভোকেট নিজাম উদ্দিন এবং এড.নাসির উদ্দিন খান। তবে আলোচনায় শীর্ষে রয়েছেন বর্তমান জেলা আওয়াামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এড.নাসির উদ্দিন খান।

সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই ব্যাপক সাড়া পড়েছে তৃণমূলে। তৃণমূলের মতামত ও সমর্থনের মধ্য দিয়ে সিলেটের আগামী নেতৃত্ব নির্বাচন করা হবে। সম্মেলনের সময় যত ঘনিয়ে আসছে তেমনি নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে।

সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন কে কেন্দ্র করে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ দুটির আলোচনায় রয়েছেন অনেক সাবেক ছাত্র নেতারা। ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতৃবৃন্দের কাছে ধর্ণা দিতে শুরু করেছেন নেতারা এবং অনেক নেতারা নিজেদের প্রার্থীতার ঘোষণা দিচ্ছেন ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেট সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে সম্মেলনের উদ্ভোধন করবেন দলের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সন্ধ্যায় কবি নজরুল অডিটোরিয়ামে অনুষ্টিত হবে সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্ব। সেখানে ৫০০ ডেলিগেট তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে আগামী দিনের নেতৃত্ব নির্বাচন করবেন। মঙ্গলবার দুপুরে আলিয়া মাদ্রাসা মাঠের মঞ্চ পরিদর্শন করেছেন নেতৃবৃন্দ।

২০০৫ সালের পর এবার সম্মেলন হচ্ছে সিলেট আওয়ামী লীগে। অন্যদিকে ২০১১ সালের নভেম্বরের পর এবার আসবে নতুন কমিটি।

ফলে এবারের সম্মেলন নিয়ে দলটির নেতাকর্মীদের মধ্যে আগ্রহের পারদ বেশ তুঙ্গে। তবে সম্মেলনে কাউন্সিলরদের ভোট গ্রহণ না করার সম্ভাবনাই বেশি বলে জানিয়েছে আওয়ামী লীগের একটি সূত্র।

শেখ হাসিনার মতামতের ভিত্তিতে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে নেতৃত্বের নাম ঘোষণা করতে পারেন। তবু ও সম্মেলনকে ঘীরে ব্যানার, ফেস্টুন আর তোরণে ছেঁয়ে গেছে নগরীর অলিগলি। নেতাকর্মীদের মাঝে বিরাজ করছে ব্যাপক প্রানচাঞ্চল ।

 

0Shares