উইজডেন’র দশক সেরা ওয়ানডে একাদশে সাকিব

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ১২:৩৫ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৩, ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক:‘ক্রিকেটের বাইবেল’ খ্যাত উইজডেন সাময়িকীর দশক সেরা ওয়ানডে একাদশে জায়গা পেলেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে এই দলে স্থান করে নিলেন সাকিব। একাদশে সর্বাধিক তিনজন ভারতীয়। অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটার রয়েছেন দু’জন করে। ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটার রয়েছেন একজন করে। পাকিস্তানের কেউ জায়গা পাননি।
উইজডেন সাময়িকীর লেখদের একটি প্যানেল বাছাই করেছে গত ১০ বছরের সেরা ১১ জন ওয়ানডে ক্রিকেটার। সাকিব আল হাসান পারফরম্যান্স বিচারে গত দশকের সেরা অলরাউন্ডার। এই সময়ে ওয়ানডেতে ১৩১ ম্যাচে ৩৮.৮৭ গড়ে ৪২৭৬ রান ও ১৭৭ উইকেট নিয়েছেন সাকিব।
ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত গত ওয়ানডে বিশ্বকাপেও ব্যাটে-বলে আলো ছড়ান সাকিব। দুই সেঞ্চুরিতে সংগ্রহ করেন টুর্নামেন্টের তৃতীয় সর্বাধিক ৬০৬ রান। বল হাতে নেন ১১ উইকেট। দশক সেরা ওয়ানডে দলে সাকিব অলরাউন্ডার হিসেবেই সাত নম্বরে জায়গা পেয়েছেন। ওপেনিংয়ে ভারতের রোহিত শর্মার সঙ্গে আছেন অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নার। রোহিত গত কয়েক বছর ধরেই ধারাবাহিক পারফর্ম করে যাচ্ছেন। গত এক দশকে ওয়ানডেতে ১৭৯ ম্যাচ খেলেছেন তিনি। ৫৩.৫০ গড়ে তার সংগ্র ৮১৮১ রান। সর্বোচ্চ ২৬৪। যা এখন পর্যন্ত ওয়ানডেতে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ইনিংসের রেকর্ড। চলতি বছর ওয়ানডেতে সবচেয়ে বেশি রান সংগ্রাহক রোহিত।
ডেভিড ওয়ার্নারের স্ট্রাইকরেট রোহিতের চেয়ে ভালো। ২০১০ থেকে ১০৯ ম্যাচ খেলেছেন অস্ট্রেলিয়ার ক্যাপ মাথায়। ৪৭.৮৮ গড়ে এ বাঁহাতির সংগ্রহ ৪৮৮৪ রান। সর্বোচ্চ ১৭৯। উইজডেনের লেখকদের ভাবনায় ছিলেন হাশিম আমলাও। কিন্তু ওয়ার্নারের বিশ্বকাপ পারফম্যান্স আমলার চেয়েও ভালো। অস্ট্রেলিয়াকে ঘরের মাঠে ২০১৫ ওয়ানডে বিশ্বকাপ জেতাতে বড় ভূমিকা ছিল ডেভিড ওয়ার্নারের। তিনটি শতক হাঁকান তিনি। তিন নম্বরে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। এই পজিশনে তার চেয়ে সেরা ব্যাটসম্যান কি আর কেউ আছেন? গত এক দশকে কোহলি ২২৬ ওয়ানডেতে ১১০৪০ রান সংগ্রহ করেছেন। ব্যাটিং গড় ৬০.৬৫! সর্বোচ্চ ১৮৩। স্ট্রাইকরেটটাও দারুণ- ৯৪। বর্তমানে টেস্ট ও ওয়ানডে ব্যাটসম্যান র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে তিনি। চারে দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স। গত এক দশকে যার ব্যাটিং গড় কোহলির চেয়েও ভালো। ১৩৫ ম্যাচে ৬৪.২০ গড়ে ডি ভিলিয়ার্স সংগ্রহ করেন ৬৪৮৫ রান। সর্বোচ্চ ১৭৬, স্ট্রাইকরেট- ১০৯! এই সময়ে তিনি ভেঙেছেন ওয়ানডের দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ডও। পঞ্চম স্থানে ইংল্যান্ডের মারকুটে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান জস বাটলার রয়েছেন। ২০১০-এর পর ১৪২ ওয়ানডে খেলেছেন বাটলার। ৪০.৮৮ গড়ে তার সংগ্রহ ৩৮৪৩ রান। পাশাপাশি ১৭১ ক্যাচ ও ৩১টি স্টাম্পিংও করেছেন বাটলার। ইংল্যান্ডের ব্যাটিং চরিত্র পাল্টে দেয়ার পেছনে উইজডেন বালটারের বড় ভূমিকা দেখেন। ইংল্যান্ড ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপ জয়ী দলের অন্যতম সদস্য তিনি।
ছয় নম্বরে ভারতের মহেন্দ্র সিং ধোনিকে বেছে নিয়েছে উইজডেন। ধোনির নেতৃত্বে ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপ জেতে ভারত। নেতৃত্ব দেয়ার পাশাপাশি ফিনিশারের ভূমিকাতেও অনন্য ছিলেন তিনি। ১৯৬ ওয়ানডেতে ৫০.৩৫ গড়ে করেছেন ৫৬৪০ রান। ১৭০ ক্যাচ ও ৭২টি স্টাম্পিংও করেছেন উইকেটের পেছনে থেকে। রান চেজের ক্ষেত্রে ধোনির ব্যাটিং গড় ১০৩! বোলার হিসেবে শ্রীলঙ্কার লাসিথ মালিঙ্গার সঙ্গে রয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার মিচেল স্টার্ক, ট্রেন্ট বোল্ট ও দক্ষিণ আফ্রিকার ডেল স্টেইন। স্টার্ক গত দুই বিশ্বকাপেই সর্বাধিক উইকেট শিকারী বোলার। ২০১০-এ অভিষেকের পর এখন পর্যন্ত ৮৫ ওয়ানডেতে ২০ গড়ে ১৮৫ উইকেট নিয়েছেন স্টার্ক। সেরা বোলিং ফিগার ৬/২৮। ২০১২তে অভিষেক ট্রেন্ট বোল্টের। ৮৯ ম্যাচে ২৫.০৬ গড়ে নিয়েছেন ১৬৪ উইকেট। হ্যাটট্রিক করেছেন দুটি। সেরা বোলিং ফিগার ৭/৩৪। মালিঙ্গা শ্রীলঙ্কাকে ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে তুলতে অবদান রাখেন। এক দশকে মালিঙ্গার শিকার ১৬২ ম্যাচে ২৪৮ উইকেট। গড় ২৮.৭৪। সেরা বোলিং ফিগার ৬/৩৮। দশকের অন্যতম সেরা পেসার ডেল স্টেইন ১৯০ ওয়ানডেতে ২৪.৮০৯ গড়ে নিয়েছেন ১৪৫ উইকেট। সেরা বোলিং ফিগার ৬/৩৯।

0Shares