ছুটির মেয়াদ সীমিত আকারে বাড়ানো ও নববর্ষের সব অনুষ্ঠান বন্ধ রাখার আহবান – প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত: ১২:০৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩১, ২০২০

ডায়ালসিলেট ডেস্ক :: করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে সরকারের ঘোষণা করা ছুটির মেয়াদ সীমিত আকারে বাড়ানো হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ (মঙ্গলবার (২০২০ইং) সকালে প্রধানমন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশের সকল জেলার জেলা প্রশাসকদের এ ঘোষণা দেন।

তিনি নববর্ষের সব অনুষ্ঠান বন্ধ রাখার অনুরোধ জানান। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নববর্ষের অনুষ্ঠান আমরাই শুরু করেছিলাম। কিন্তু তাও আমাদের বন্ধ রাখতে হচ্ছে। মানুষের কল্যাণেই এ অনুষ্ঠান না করার অনুরোধ আপনাদের।’

সরকারর রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) দেওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুসারে, এ পর্যন্ত দেশে ৪৯ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন পাঁচজন। মোট ১ হাজার ৩৩৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।
করোনাভাইরাস মোকাবিলায় আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি-বেসরকারি অফিসে টানা ১০ দিনের ছুটি চলছে।
ভিডিও কনফারেন্সে জেলা প্রশাসকেরা তাঁদের নিজ নিজ জেলার সর্বশেষ প্রস্তুতির অবস্থা সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীকে জানান। এসময় প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাসের ঝুঁকি এড়াতে বিভিন্ন নির্দেশনা দেন।

তিনি বলেন এ বছর আপনারা জানেন, আমরা ১৭ মার্চ ও ২৬ মার্চের সব অনুষ্ঠান সীমিত করেছি। কোনো ধরনের জনসমাগম যেন না হয়, আমরা সে নির্দেশনা দিয়েছি। নববর্ষের জন্যও একই নির্দেশনা থাকবে।
বাইরে অনুষ্ঠান না করতে পারলেও বাংলা নববর্ষে ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় অনুষ্ঠান করে সবার মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
তিনি আরো বলেন, আমাদের স্কুল-কলেজ বন্ধ। কিন্তু সংসদ টিভির মাধ্যমে আমরা ছাত্র-ছাত্রীদের ক্লাস করার সুযোগ করে দিয়েছি। ঠিক একইভাবে ডিজিটাল মাধ্যম ব্যবহার করেও আপনারা গান-বাজনা করতে পারেন। ডিজিটাল মাধ্যমে অনুষ্ঠান করে সবার মধ্যে ছড়িয়ে দিন।
প্রধানমন্ত্রী এসময় আরও বলেন, ব্যক্তিগতভাবে আমার নিজেরও অনেক কষ্ট লাগছে। কারণ আমরাই এই উৎসব শুরু করেছিলাম। এই উৎসব জাঁকজমকপূর্ণভাবে না হওয়াটা কষ্টের। তবু এখনকার ঝুঁকি বিবেচনায় নিয়ে কেউ উৎসব করবেন না। পরেশেষে তিনি প্রয়োজনীয় সির্দেশনা পালন করতে দেশবাসী সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

0Shares