সিলেটে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দরা যা বললেন

প্রকাশিত: ৭:১৭ অপরাহ্ণ, জুন ১৩, ২০২০

নিশাত তাসনিম নিতু :: প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের বিস্তার দেশের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে পড়েছে। একই সাথে স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না সিলেটের জনগণ। ঠিক একই অবস্থা গণপরিবহনের। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে গণপরিবহন চালুর কথা থাকলেও অনেকে তা মানছেন না। দেখা যায় সিলেট নগরী ও তার বাইরে যানবাহনগুলো স্বাস্থ্যবিধি না মেনে যাত্রী উঠা-নামানো হচ্ছে।

অপরদিকে বন্দরবাজার-আম্বরখানা,মদিনামার্কেটসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় কাচাঁবাজারগুলোতে সামাজিক দূরত্ব না মেনে ভীড় জমাচ্ছেন অনেকে। এতে করোনা সংক্রমনের সংখ্যা আরো বৃদ্ধি পাচ্ছে। অন্যদিকে ১ম লকডাউন শুরু হওয়ার পর থেকে বিভিন্ন পর্যায়ের রাজনৈতিক সংগঠনসহ সামাজিক সংগঠনের উদ্যোগে দুস্থ অসহায় মানুষদের মাঝে ত্রান বিতরন করা হয়।

এছাড়া বর্তমান পরিস্থিতি অবস্থা নিয়ে সিলেটে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দরা সিলেটের বিভিন্নস্থানে দুস্থ ও অসহায় মানুষদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়।

এছাড়া দল-মত নির্বিশেষে সকলকে পাশে থেকে মহামারী করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় এগিয়ে আসার জন্য আহবান জানান সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দরা।

এদিকে স্বাস্থ্য অধিদফতর সিলেট বিভাগীয় অফিসের সহকারি পরিচালক ডা. আনিসুর রহমানের দেয়া তথ্য অনুযায়ী জানা যায়, ১৩ই জুন শনিবার পর্যন্ত সিলেট বিভাগজুড়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২ হাজার ১৪৩ জন, ও মারা গেছেন ৪৬ জন এবং এতে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪৫১ জন ।

করোনায় সিলেট বিভাগের মধ্যে সিলেট জেলায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা সবচেয়ে বেশী রয়েছে। এতে দেখা যায় সিলেট জেলায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৩০৫ জন এবং মোট মারা গেছেন ৩৫ জন, সুনামগঞ্জ জেলায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪৩৩ জন, মারা গেছেন ৪ জন, হবিগঞ্জ জেলায় আক্রান্ত হয়েছেন ২২৭ জন ও মারা গেছেন ৩ জন, এবং সর্বশেষ মৌলভীবাজার জেলায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৭৮ জন এবং মারা গেছেন ৪ জন।

এভাবে চলতে থাকলে দেশের পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ রূপ আকার ধারণ করবে। তাই সকলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং মাস্ক ব্যবহার করে প্রয়োজনে ঘরে থেকে বাইরে বের হবেন। প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের না হয়ে নিজেকে ও নিজের পরিবারকে সুস্থ্য রাখুন।

 

0Shares