করোনার জাল সার্টিফিকেট নিয়ে চলছে জমজমাট ব্যবসা

প্রকাশিত: ১১:৩৬ অপরাহ্ণ, জুন ১৬, ২০২০

করোনার পরীক্ষার জাল সার্টিফিকেটের বানিয়ে রাজধানীতে চলছে জমজমাট ব্যবসা ৷ প্রতারকচক্র করোনার নেগেটিভ সনদ বিক্রি শুরু করেছে সাধারণ মানুষদের কাছে।

এদিকে চিকিৎসার জন্যও এখন হাসপাতালগুলো রোগী ভর্তি হতে গেলেই করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট চায় বিভিন্ন সরকারি ও প্রাইভেট হাসপাতালগুলো ৷ এই সার্টিফিকেট ছাড়া রোগী ভর্তি তো দূরের কথা অনেক সময় চিকিৎসাই দিতে চায়না তারা ৷ এর বাইরে কর্মস্থল, পোশাক কারখানা এবং ভ্রমণের জন্য করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট অনেকটা বাধ্যতামূলক হয়েছে ৷

কিন্তু সাধারণভাবে করোনা টেস্ট এখানে সময় সাপেক্ষ এবং উপসর্গ ছাড়া পরীক্ষা করানো কঠিন৷  আর এই সুযোগ নিচ্ছে প্রতারক চক্র ৷ তারা বিভিন্ন হাসপাতাল, করোনা টেস্টিং সেন্টারের সিল, চিকিৎসকের নাম, সাক্ষর এবং করোনা সার্টিফিকেটের স্টাইল জাল করে ভুয়া সার্টিফিকেট তৈরি করে দিচ্ছে ৷

এছাড়াও শুধু নেগেটিভ নয়, পজেটিভ সার্টিফিকেটও দিচ্ছে  প্রতারকচক্ররা ৷ পজেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে কেউ কেউ আবার অফিসে না গিয়ে বাসায় ছুটি কাটানোসহ নানা সরকারি সুবিধা নিচ্ছেন৷ ঢাকা শহরে এইসব সার্টিফিকেট বিক্রি হচ্ছে পাঁচ থেকে সর্বোচ্চ সাত হাজার টাকা ৷ ঢাকাসহ জেলা শহরের হাসপাতালগুলোকে কেন্দ্র করেই এই চক্র সবচেয়ে বেশি তৎপর। তারা হাসপাতাল এলাকা থেকেই প্রধানত জাল সার্টিফিকেট ক্রেতাদের টার্গেট করে ৷

এদিকে পোশাক কারখানা এলাকায়ও তাদের তৎপরতা আছে ৷ রাজধানীর মুগদা এলাকা থেকে কোভিড-১৯ এর ভুয়া নেগেটিভ সনদ বিক্রির অপরাধে প্রতারক চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন  র‌্যাব-৩।

এসময়  র‌্যাব কর্মকর্তা গনমাধ্যমকে জানান, গত সোমবার রাজধানীর তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ ভুয়া সনদ ও সনদ তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৩-এর সদস্যরা গত সোমবার মুগদা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩ প্রতারকচক্রকে  গ্রেপ্তার করা হয়।

0Shares