দক্ষিণ সুরমার দাউদপুরে লোকালয়ে বাঘ, আতংকে এলাকাবাসী

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ১০:২৪ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২০

ডায়ালসিলেট ::সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের দাউদপুর এলাকায় লোকালয়ে বাঘ। আতংকে রাতদিন পার করছেন এলাকার সাধারণ জনগণ। গ্রামের পাড়া-মহল্লার রাস্তাঘাটে, বাজারে মানুষের মুখে মুখে বাঘের আক্রমণের খবর ও বাঘ আতংক বিরাজ করছে।
জানা যায়, গত ১০ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে পশ্চিম দাউদপুর গ্রামের মৃত ধিরেন্দ্র চন্দের ছেলে শ্রীবাস চন্দ, একই গ্রামের মকু মিয়ার ছেলে নিজাম উদ্দিন ও সামাদ মিয়া ছেলে মুজাহিদ ইসলাম দাউদপুর চৌধুরীবাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে দাউদপুর হাসপাতালের সামনে পৌছামাত্র পেছন থেকে বাঘ এসে তাদের উপর ঝাপিয়ে পড়ে শ্রীবাস চন্দকে কামড় দেয়। এ সময় তার সাথে থাকা দু’জন দৌড় দিয়ে পালিয়ে যায়। শ্রীবাসের আত্মচিৎকার, সাহসিকতার কারণে ও লাইটি জ¦ালিয়ে একটি গাড়ি আসায় বাঘ পালিয়ে যায়। স্থানীয় জনগণ তাকে উদ্ধার করে মোগলাবাজারে চিকিৎসা জন্য প্রেরণ করেন। বর্তমানে তার ডান পায়ে বাঘের কামড়ের চিহ্ন রয়েছে। চিকিৎসক শ্রীবাসকে ভেকসিন প্রদান করেছেন।
একই দিন রাত সাড়ে ৮টায় দাউদপুর গাংপাড় মুতিরপাড়ার বাড়ি থেকে কবির আহমদ চৌধুরী (কাজী) নামাজে উদ্দেশ্যে বের হলে বাড়ির সামনের রাস্তায় পেছন থেকে বাঘ এসে তার ঝাপিয়ে পড়ে। তিনি বাঘের আক্রমণ প্রতিহত করার সময় বাঘ তার বাম হাতে কামড় দেয়। তার আত্মচিৎকার শোনে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। বর্তমানে তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
আলাপকালে শ্রীবাস জানায়, আমি মনে করেছিলাম আমাকে শিয়ালে আক্রমণ করেছে। শিয়াল মানুষকে ভয় পায়, দেখলে দৌড়ে পালায়। কিন্তু আক্রমনের ধরন দেখে বুঝতে পারলাম এটা শিয়াল নয়, এটা বাঘ।
ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কবির আহমদ চৌধুরী (কাজী) বলেন, অন্ধকারের জন্য আমি নিশ্চিত হতে পারেনি আমাকে শিয়াল না বাঘে আক্রমণ করেছে। তবে সেটা একটি হিংস্র পশু।
ঘটনার পর থেকে দাউদপুর দাউদাবাদ সড়ক দিয়ে এলাকার মানুষ সহ বিভিন্ন গ্রামের লোকজন বাঘ আতংকে চলাচল করতে ভয় পাচ্ছেন।
এ ব্যাপারে এলাকাবাসী বলেন, গত সপ্তাহ খানেক ধরে আমাদের দাউদপুর এলাকার লোকজন বাঘ আতংকে ভোগছেন। ইতিপূর্বে দু’জনকে বাঘে আক্রমণ করেছে। তারা চিকিৎসাধিন। বিষয়টি আমরা এলাকাবাসী বন বিভাগকে জানিয়ে বাঘ ধরার ব্যবস্থা করে অত্র এলাকার মানুষদের জানমালের নিরাপত্তার জন্য দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।
আলাপকালে দক্ষিণ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিন্টু চৌধুরী বলেন, দাউদপুরে বাঘে আক্রমণে দু’জন আহত হওয়ার বিষয়টি আপনার কাছ থেকে জানলাম। আমি এখনই বিষয়টি বন বিভাগকে জানাবো। যত দ্রুত সম্ভব বাঘটি ধরার ব্যবস্থা করে এলাকাবাসীকে আতংক থেকে মুক্ত করবো।

0Shares