”আঙ্কেল আমাকে মেরে ফেলো কিন্তু ধর্ষিত হতে চাইনা” মানবন্ধনে ছোট্ট শিশু

প্রকাশিত: ৫:৪২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০২০

সোহেল আহমদ পাপ্পু ::  সিলেটসহ সারাদেশে নারী ও শিশু ধর্ষণ এবং সামাজিকভাবে রাজনৈতিক পরিচয় দিয়ে নারীদের পাশবিক নির্যাতনসহ নিরাপত্তার দাবিতেেএক মানববন্ধনের আয়োজন করে সাধারণ শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠন।

মঙ্গলবার বিকেলে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনানের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এমসি কলেজ ছাত্রবাসে ঘটে যাওয়া এবং সিলেটের শামীমাবাদ এলাকা ও নোয়াখালীসহ বিভিন্নস্থানে ঘটে যাওয়া বর্বরোচিত ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে সিলেটের সাধারণ শিক্ষার্থী  এবং বিভিন্ন সামাজিকসংগঠনের নেতৃবৃন্দরা বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে ।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা সরকারের কাছে আবেদন করেন অনতিবিলম্বে ধর্ষকদের আইনের আওতার মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিও দাবি জানান এবং একইসাথে ধর্ষকদের সর্ব্বোচ্চ শাস্তি ফাসিঁর আইন কার্যকর করা হোক এ দাবিও জানান তারা। যাতে এরকম ঘটনা ধর্ষকরা যেন আর কখনও ঘটাতে না পারে।

এসময় মানববন্ধনে দেখতে পাওয়া যায় একটি ছোট্ট শিশুর প্রতিবাদ জানাতে মানববন্ধনে সবার সাথে দাড়িয়ে। সঙ্গে রয়েছেন তার বাবা-মাও। হঠাৎ যাওয়ার পথে রাস্তায় মানববন্ধনের কর্মসূচী দেখে তারাও মটরসাইকেল  রাস্তার পাশে রেখে মানববন্ধনে যোগ দিয়ে সকলের সাথে একাত্ততা ঘোষণা করেন। তখন এই ছোট্ট শিশুটির হাতের ব্যানের লিখা ছিল ”আঙ্কেল আমাকে মেরে ফেলো কিন্তু ধর্ষিত হতে চাইনা”। এই শব্দটা যেন প্রতিটা সন্তানের মুখের কথা তুলে ধরেছে সেই শিশুটি। তারপর যেন হিংস্র প্রণিীর মত ধর্ষকদের সঠিক বিচার হয়না। যদি  বাংলাদেশে ধর্ষকদের  উপযুক্ত বিচার না হয় তাহলে ধর্ষকদের মাত্রা বৃদ্ধি পাবে।

উল্লেখ্য, সিলেট এমসি কলেজ, শামীমাবাদ ,দাড়িয়া পাড়া ও নোয়াখালীসহ দেশের বিভিন্নস্থানে ঘটে যাওয়া হাজার হাজার নারী-শিশু ধর্ষিত হচ্ছে নির্যাতিত হচ্ছে। এ মূহুর্তে সরকার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করতে না পারলে ধর্ষকদের ক্ষমতা আরো বৃদ্ধি পাবে এবং যারা মদদদাতারা দলীয় সংগঠনের নাম বিক্রি করে দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করছে।

0Shares