মার্কিন পণ্যে শুল্ক আরোপের সিদ্ধান্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের

প্রকাশিত: ১২:৫৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১০, ২০২০

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃঃ
যুক্তরাষ্ট্রের বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িংকে বিশেষ সুবিধা দেওয়ার অভিযোগের ধারাবাহিকতায় এবার মার্কিন পণ্যের ওপর ৪ বিলিয়ন ডলার শুল্ক আরোপ করতে যাচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।
মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) এই তথ্য জানিয়েছে বিবিসি।
তবে, গত বছর ইউরোপিয়ান পণ্যের ওপর মার্কিন শুল্ক আরোপের মধ্য দিয়ে যে দ্বন্দ্বের শুরু হয়েছিল ইউরোপীয় ইউনিয়ন এখনও আশাবাদী দুপক্ষের মধ্যে চলমান সেই বিবাদের নিরসন হবে। বলা হচ্ছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে জো বাইডেনের ক্ষমতাগ্রহণ এই সমস্যা সমাধানের পথ প্রশস্ত করবে।
ইউরোপীয় ইউনিয়নের ট্রেড কমিশনার ভালডিস ডমব্রোভস্কিস জানিয়েছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন চেয়েছিল দুপক্ষই পাল্টাপাল্টি শুল্কারোপের রীতি থেকে সরে আসুক। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বোয়িংকে বিশেষ সুবিধা দিয়েছে বলে এয়ারবাসের যে অভিযোগ এবং একইভাবে এয়ারবাসকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বিশেষ সুবিধা দিয়েছে বলে বোয়িংয়ের যে অভিযোগ, তার শেষ হোক।
ডমব্রোভস্কিস বলেন, এই শুল্কযুদ্ধের অবসান হলে দুপক্ষই লাভবান হবেন। বিশেষ করে, এই মহামারিকালীন ভয়ংকর অর্থনৈতিক বিপর্যয়কালে এটা খুবই ইতিবাচক একটা ভূমিকা পালন করবে। আমরা আবার আমাদের ট্রান্স-আটলান্টিক সহযোগিতাকে নতুন করে কাজে লাগিয়ে নিজেদের লক্ষ্য অর্জনের পথে চলতে পারি।
ইউরোপীয় ইউনিয়নের এমন পদক্ষেপ প্রসঙ্গে মার্কিন বাণিজ্য প্রতিনিধি রবার্ট লাইটহাইজার জানিয়েছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের এমন পদক্ষেপে আমেরিকা হতাশ। কারণ, বোয়িংকে সুবিধা দেয়ার অভিযোগটি সাত মাস আগেই শেষ (বাতিল) হয়েছে এবং বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার আইন মানবে বলে ইউরোপীয় ইউনিয়ন প্রচার করে আসছিল। কিন্তু মার্কিন পণ্যের শুল্ক আরোপের জন্য তাদের এই ঘোষণার কথা শুনে মনে হয় সে সময় তা বলেছিল, শুধুই আমাদের পটানোর জন্য। উল্লেখ্য,রবার্ট লাইটহাইজার ডোনাল্ড ট্রাম্পের শীর্ষ বাণিজ্যিক কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।
বোয়িং ও এয়ারবাসকে রাষ্ট্রীয় সুবিধা দেয়ার পারস্পরিক অভিযোগের শুরুটা ট্রাম্পের শাসনামলের আগের হলেও তার সময়েই এই দ্বন্দ্ব চূড়ান্ত রূপ ধারণ করে।

0Shares