বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙা দুঃখজনক, সতর্ক অবস্থানে সরকার

প্রকাশিত: ৪:৩৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৬, ২০২০

ডায়ালসিলেট ডেস্কঃঃ স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম বলেছেন, কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভেঙে ফেলার ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভেঙে আমরা তাঁকেই শুধু অসম্মান করছি না, বরং আমরা জাতি হিসেবে নিজেদেরকেও ছোট করছি।

কুষ্টিয়ার ঘটনা সরকার অত্যন্ত সতর্কতার সাথে পর্যবেক্ষণ করছে এবং জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও উল্লেখ করেন মন্ত্রী।

রবিবার সকালে মন্ত্রণালয়ের নিজ কক্ষে বাংলাদেশে নিযুক্ত তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মোস্তফা ওসমান তুরানের সৌজন্য সাক্ষাত শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানুষের অধিকার আদায়ে সারাজীবন লড়াই সংগ্রাম করে গেছেন। আমাদের স্বাধীনতা দিয়েছেন। এখন আমরা যদি তাঁর সম্মান রক্ষা করতে না পারি তাহলে সেটা খুবই দুঃখজনক।

তিনি বলেন বঙ্গবন্ধুকে অপমান করা জাতি হিসেবে আমাদের জন্য দুর্ভাগ্যের। ১৫ই আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে জাতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমরা ২০৪১ সালে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন দেখছি। বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে ২০০০ সালেই দেশ ক্ষুধা দারিদ্র্য-মুক্ত ও উন্নত-সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হয়ে যেত।

মোঃ তাজুল ইসলাম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এখন উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় অপ্রতিরোধ্য। বঙ্গবন্ধুর অবদান, দর্শন এবং ত্যাগের কারণে আমরা এই দেশ পেয়েছি। আমরা যদি তাঁর প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করতে না পারি সেটা হবে জাতির জন্য অমঙ্গলকর এবং দুর্ভাগ্যজনক।

এর আগে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মোস্তফা ওসমান তুরান দুই দেশের বিভিন্ন স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

সাক্ষাৎকালে তাঁরা অবকাঠামো ও যোগাযোগ ব্যবস্থা, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, পানি নিষ্কাশন, সাংস্কৃতিক, গ্রামীণ উন্নয়নসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন। তুরস্ককে বাংলাদেশের অত্যন্ত বন্ধুপ্রতিম দেশ হিসেবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন দুই দেশের সম্পর্কে ভবিষ্যতে আরো শক্তিশালী হবে।

এ সময় তুরস্কের রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

0Shares