প্রতিপক্ষের গলা চেপেও পার পেলেন কাভানি

প্রকাশিত: ১২:৪৫ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৪, ২০২০

স্পোর্টস ডেস্কঃঃ ভাগ্যের জোরে লাল কার্ডের খড়গ থেকে বেঁচে গেলেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ফরোয়ার্ড এডিনসন কাভানি। উরুগুইয়ান তারকা এভারটনের কলম্বিয়ান ডিফেন্ডার ইয়েরে মিনাকে গলা চেপে মাটিতে ফেলে দেন। ঘটনাটি রেফারির চোখ এড়িয়ে যায়। ছিল না ভিএআরও। ম্যাচ শেষ হতেই ইংলিশ কিংবদন্তি স্ট্রাইকার গ্যারি লিনেকারের টুইট, ‘ভিএআর থাকলে নিশ্চিতভাবেই লাল কার্ড দেখতেন কাভানি।’ বুধবার রাতে ইংলিশ লীগ কাপের কোয়ার্টার ফাইনালে এভারটনকে ২-০ গোলে হারিয়ে সেমিতে রেড ডেভিলরা। সেমিতে ইউনাইটেডের প্রতিপক্ষ ম্যানচেস্টার সিটি। গত আসরের সেমিতেও মুখোমুখি হয়েছিল ম্যানচেস্টারের দুই ক্লাব।

এভারটনের ঘরের মাঠ গুডিসন পার্কে জয় তুলে নিতে বেগ পেতে হয়েছে ম্যানইউকে। তবে শেষ দিকের দারুণ পারফরমেন্সে শেষ চারের টিকিট নিশ্চিত হয় ওলে গানার সুলশারের দলের।

৮৮তম মিনিটে প্রথম গোল করেন কাভানি। তবে কাভানি তার অপরাধের শাস্তি পেলে হয়তো ম্যাচের ফল অন্যরকম হতে পারতো। কাভানির পর দুই মিনিটের ব্যবধানে দলের দ্বিতীয় গোল করেন অ্যান্থনি মার্র্শিয়াল। গত মৌসুমেও লীগ কাপের শেষ চারে মুখোমুখি হয়েছিল দুই নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী। ম্যানইউকে হারিয়ে ফাইনাল খেলে সিটিজেনরা। পরে শিরোপাও জেতে পেপ গার্দিওলার দল। লীগ কাপের সেমিতে টানা দুই মৌসুম একই প্রতিপক্ষের মুখোমুখি হওয়ার ঘটনা বিরল। ২০০৭ ও ২০০৮ সালে প্রথমবার টানা দুই মৌসুম সেমিতে মুখোমুখি হয়েছিল আর্সেনাল ও টটেনহ্যাম হটস্পার।

আরেক ম্যাচে স্টোক সিটিকে ৩-১ গোলে হারিয়ে শেষ চারের টিকিট নিশ্চিত করেছে টটেনহ্যাম। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে তিন ম্যাচ পর প্রথম জয়ের দেখা পেল হোসে মরিনহোর দল। আগের তিন ম্যাচে জয় অধরা থাকায় স্টোক সিটির বিপক্ষে দলে মোট সাত পরিবর্তন আনেন টটেনহ্যাম কোচ হোসে মরিনহো। একাদশে জায়গা পান ডেলে আলি ও গ্যারেথ বেল। ম্যাচের ২২তম মিনিটে বেলের করা গোলে লিড নেয় টটেনহ্যাম। হ্যারি উইঙ্কসের দারুণ ক্রস হেডে বল জালে জড়ান ওয়েলশ তারকা। বিরতির পর জর্ডান থমসনের করা গোলে সমতায় ফেরে স্টোক সিটি। ৭০ মিনিটে দলকে ফের এগিয়ে দেন বেন ডেভিস। ৮১ মিনিটে স্কোরলাইন ৩-১ করেন অধিনায়ক হ্যারি কেইন। সেমিফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ ব্রেন্টফোর্ড।

0Shares