নতুন ধরনের করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বজুড়ে

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ৯:২২ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৮, ২০২০

ডায়ালসিলেট ডেস্ক:;প্রথমে বৃটেনে নতুন ধরনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর এখন কার্যত বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে তা। ইউরোপের বেশ কিছু দেশে, কানাডা, জাপান সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই ভাইরাস এখন প্রচণ্ড সংক্রমণ ঝুঁকি সৃষ্টি করেছে। মূল করোনাভাইরাসের চেয়ে কমপক্ষে ৭০ গুণ বেশি সংক্রামক এই রূপান্তরিত করোনাভাইরাস। ফলে এই ভাইরাসের বিস্তার নিয়ে উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা দেখা দিয়েছে বিশ্বজুড়ে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। এতে বলা হয়েছে, বৃটেন সফরে গিয়েছিলেন স্পেন, সুইজারল্যান্ড, সুইডেন এবং ফ্রান্সে এমন ব্যক্তিরা রূপান্তরিত এই ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন। ওদিকে কানাডার অন্টারিওতে এক দম্পতি আক্রান্ত হয়েছেন। তবে তাদের কোনো দেশ সফরে যাওয়ার রেকর্ড নেই সাম্প্রতিক সময়ের।

অথবা উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানেও তারা যাননি। এমন অবস্থায় সোমবার থেকে এক মাসের জন্য ভ্রমণে কড়াকড়ি আরোপ করছে জাপান। অনাবাসিক বিদেশি বেশির ভাগ নাগরিকের সেদেশে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হচ্ছে। সম্প্রতি বৃটেন সফর করেছেন এমন ৫ জন ব্যক্তির শরীরে নতুন এই করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ ছাড়া আরো দু’জন আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে একজন দেশের  ভেতরেই আক্রান্ত হয়েছেন। ইউরোপের বিভিন্ন দেশ করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে টিকা দেয়া শুরু করেছে রোববার থেকে। জার্মানির উত্তর-পূর্বাঞ্চলের স্বাস্থ্যকর্মীরা বলেছেন, তারা ফাইজার বায়োএনটেকের টিকা বিতরণের জন্য আর একটি দিনও অপেক্ষা করতে চান না। হ্যালবার্স্টাডট এলাকায় একটি নার্সিং হোমে বয়স্ক নাগরিকদের ওপর টিকা দেয়ার মাধ্যমে তারা এই কার্যক্রম শুরু করেছেন। হাঙ্গেরিতে ডেল-পেস্ট সেন্ট্রাল হাসপাতালের একজন ডাক্তারকে প্রথম করোনাভাইরাসের টিকা দেয়া হয়েছে। টিকা দেয়া শুরু হয়েছে স্লোভাকিয়াতেও। ইউরোপে টিকা দেয়া শুরু হওয়া উপলক্ষে টুইটারে একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন ইউরোপিয়ান কমিশনের প্রধান উরসুলা ভন ডার লেন। টিকাদানকে তিনি একতার একটি মুহূর্ত বলে আখ্যায়িত করেছেন।
কানাডায় আক্রান্ত দম্পতি টরোন্টোর ডারহামের বাসিন্দা। তারা বর্তমানে নিজেরাই আইসোলেশনে রয়েছেন। জাপানে আক্রান্ত দু’ব্যক্তির মধ্যে একজন পাইলট রয়েছেন। তিনি ১৬ই ডিসেম্বর লন্ডন থেকে জাপানে ফিরেছেন। আক্রান্ত আরেকজন একজন নারী। এ অবস্থার পর সোমবার থেকে ভ্রমণ কড়াকড়ি করছে জাপান। এর অধীনে জাপানের নাগরিক ও জাপানি নাগরিক নন, তবে বাসিন্দা- এমন ব্যক্তিরা যদি বিদেশে অবস্থান করেন, তাহলে তাদেরকে দেশে ফেরা অনুমোদন করেছে জাপান। এ ছাড়া স্বল্প পরিমাণে ব্যবসায়ীদের প্রবেশ অনুমোদন করা হবে। এক্ষেত্রে বেশির ভাগ অগ্রাধিকার পাবেন এশিয়ার দেশগুলোর ব্যবসায়ীরা। স্পেনের মাদ্রিদে চারজনের দেহে নতুন করোনাভাইরাস নিশ্চিত করা হয়েছে। তারা সবাই বৃটেন থেকে দেশে ফিরেছেন। তবে তাদের কারো অবস্থা আশঙ্কাজনক নয়। সুইজারল্যান্ডে শনাক্ত হয়েছেন তিনজন। এর মধ্যে সেখানে বসবাসকারী দু’জন বৃটিশ নাগরিক। ইউরোপের মধ্যে এ দেশটিই বড়দিন এবং নতুন বর্ষবরণের সময় তাদের পর্যটনকে সজীব রাখতে স্কি রিসোর্টগুলো খোলা রেখেছে। কয়েক সপ্তাহে সেখানে বৃটেন থেকে কয়েক হাজার পর্যটক গিয়েছেন। সুইডেনে স্বাস্থ্য বিষয়ক এজেন্সি বলেছে, নতুন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত একজন ভ্রমণকারীকে শনাক্ত করেছে তারা। বর্তমানে তিনি আইসোলেশনে রয়েছেন। ফ্রান্সেও নতুন করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছে। লন্ডন থেকে দেশটির কেন্দ্রীয় শহর ট্যুর-এ ফেরার পর একজনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। নতুন করোনাভাইরাস ধরা পড়ার পর বৃটেনের সঙ্গে সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছিল ফ্রান্স। কিন্তু ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের নাগরিকদের জন্য সেই নিষেধাজ্ঞা বুধবার উঠিয়ে নিয়েছে তারা। নতুন এই করোনাভাইরাস সংক্রমণ দেখা দিয়েছে ডেনমার্ক, জার্মানি, ইতালি, নেদারল্যান্ডস ও অস্ট্রে

0Shares