রোহিঙ্গাদের ন্যায়বিচারের প্রতিশ্রুতি জান্তাবিরোধী জোটের

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ১১:৫৬ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৫, ২০২১

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক ::

মিয়ানমারের সবচেয়ে নির্যাতিত সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠী রোহিঙ্গাদের ন্যায়বিচার পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন দেশটির বর্তমান জান্তা সরকারের বিরোধী দলগুলোর জোটের এক নেতা। বুধবার এক ফেসবুক পোস্টে ডা. সাসা নামের সেই নেতা এই প্রতিশ্রুতি দেন।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৫, পুড়েছে ৯ হাজার ৩০০ ঘর রোহিঙ্গারাও সামরিক বাহিনীর হাতে চরম নির্যাতনের শিকার হয়েছেন উল্লেখ করে ফেসবুক পোস্টে ডা. সাসা বলেন, ‘মিয়ানমারের মহান ও সাহসী জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ, নৃশংসতা ও মানবতা বিরোধী অপরাধ করার দায়ে সেনাবাহিনীর জেনারেলদের বিচারের মুখোমুখি না করার পর্যন্ত আমরা থামবো না।’ ডা. সাসা মিয়ানমারের একজন চিকিৎসক। নিরাপত্তার স্বার্থে নিজের একটি নামই ফেসবুক পোস্টে ব্যবহার করেছেন তিনি।

গত ১ ফেব্রুয়ারি অভ্যুত্থানের মাধ্যমে মিয়ানমার সেনাবাহিনী রাষ্ট্রক্ষমতা দখলের পর দেশটির সাবেক গণতান্ত্রিক সরকারের যে কয়জন নেতা গ্রেপ্তার এড়িয়ে আত্মগোপন করতে পেরেছিলেন তারা জান্তা সরকারকে উৎখাত করে ফের দেশটিতে গণতান্ত্রিক শাসন ফিরিয়ে আনতে চাইছে। তাদের মুখপাত্র হয়ে কথা বলছেন ডা. সাসা। ইতোমধ্যে সেনাবাহিনী তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ এনেছে এবং তিনিও আত্মগোপনে আছেন।

সন্ত্রাস দমনের নামে ২০১৭ সালে মিয়ানমার সেনাবাহিনী রাখাইনে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর ব্যাপক দমন-পীড়ন চালিয়ে তাদের দেশত্যাগে বাধ্য করে। প্রাণ বাঁচাতে প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে প্রতিবেশী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়ে আছেন। জাতিসংঘের তদন্তকারী সংস্থা এই নির্যাতনকে ইতোমধ্যে গণহত্যা বলে উল্লেখ করেছে।

কিন্তু বিশ্বের গণতন্ত্রের আইকন হিসেবে পরিচিত মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি গত ফেব্রুয়ারির গণঅভ্যুত্থানে উৎখাত ও বন্দি হওয়ার আগ পর্যন্ত বরাবরই সেনাবাহিনীর পক্ষে সাফাই গেয়ে গেছেন। গত বছর থেকে হেগের আন্তর্জাতিক আদালতে এ নিয়ে মামলা হয়েছে এবং শুনানিও চলছে। সেখানেও এমনকি হেগে সেনাবাহিনীর পক্ষে সাক্ষ্য দিয়েছেন সু চি। এখন সেই সেনাবাহিনীর হাতে বন্দি আছেন সু চি। দুর্নীতির অভিযোগে তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলাও করেছে জান্তা সরকার।

মিয়ানমারের কারাবন্দিদের সহয়াতা দানকারী সংস্থা অ্যাসিসটেন্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিক্যাল প্রিজনার্স অ্যাক্টিভিস্ট গ্রুপ (এএপিপিএজি) বলেছে, সেনাঅভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে টানা গণবিক্ষোভে দেশটিতে এখন পর্যন্ত অন্তত ২৭৫ বিক্ষোভকারী নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে নিহত হয়েছেন।

0Shares