এক নজরে মোদির বাংলাদেশ সফর

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ৮:৫৫ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৮, ২০২১

ডায়ালসিলেট ডেস্ক::ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরে কি কি সমঝোতা, আলোচনা, উদ্বোধন এবং ঘোষণা এসেছে তার একটি সামারি বা সারাংশ শেয়ার করেছে ঢাকাস্থ দেশটির হাইকমিশন। পাঠকদের বিবেচনায় তা হুবহু তুলে ধরা হলো-

সমঝোতা স্মারকসমূহ (৫টি)
১। জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ, এমএইচএ, ভারত এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশের মধ্যে জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, স্থিতিশীলতা ও প্রশমন বিষয়ে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর।
২। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর এবং ভারত প্রজাতন্ত্রের ন্যাশনাল ক্যাডেট কোরের মধ্যে সমঝোতা স্মারক।
৩। বাংলাদেশ-ভারত ডিজিটাল পরিষেবা ও কর্মসংস্থান প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের জন্য আইসিটি সরঞ্জাম, কোর্সওয়্যার এবং রেফারেন্স বই এবং প্রশিক্ষণের জন্য সমঝোতা স্মারক। ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, যশোর ও নাটোরে ছয়টি (৬)) বিডিএসইটি কেন্দ্র স্থাপন করা হবে।
৪।

রাজশাহী কলেজ মাঠ ও আশেপাশের এলাকায় ক্রীড়া সুবিধা স্থাপনের জন্য সমঝোতা স্মারক।
৫। বাণিজ্য প্রতিকার ব্যবস্থার ক্ষেত্রে অবকাঠামোগত সহযোগিতা প্রতিষ্ঠার বিষয়ে সমঝোতা স্মারক।

উদ্বোধন / চালু (৮টি)

১। মুক্তিযুদ্ধের ভারতীয় শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি: ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনীর শহীদদের সম্মানে প্রথম স্মৃতিসৌধের জন্য ভিত্তি প্রস্তর উন্মোচন করা হয়। এটি আশুগঞ্জে নির্মিত হবে। এটি ভারতীয় শহীদদের বিশেষভাবে সম্মানিত করে বাংলাদেশের প্রথম স্মৃতিসৌধ।

২। দুই প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু-বাপু ডিজিটাল প্রদর্শনীর বাংলাদেশ অংশের উদ্বোধন করেন। এই ডিজিটাল প্রদর্শনীটি জাতিসংঘসহ বিশ্বের অন্যান্য স্থানে প্রদর্শিত হবে।

৩। কুষ্টিয়ার শিলাইদহে রবীন্দ্রভবন কুঠিবাড়ীর বর্ধিত উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন।

৪। রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের বিদ্যুৎ সঞ্চালনের জন্য অবকাঠামোগত উন্নয়নের লক্ষ্যে ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন।

৫। ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে তিনটি সীমান্ত হাট- রিংকু বাগানবাড়ি, নালিকাটা-সায়দাবাদ ও ভোলাগঞ্জ-ভোলাগঞ্জ- উদ্বোধন।
৬। ভারত-বাংলাদেশ কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার ৫০তম বার্ষিকী উপলক্ষে ভারত-বাংলাদেশ বন্ধুত্বের স্মারক ডাকটিকিট চালু।
৭. কোভিড মোকাবিলায় সহযোগিতা: ১.২ ডোজ মিলিয়ন কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন উপহার। বাংলাদেশ ভারতে উৎপাদিত কোভিড ১৯ ভ্যাকসিনের বৃহত্তম বিদেশী প্রাপক- উপহার হিসেবে ৩.২ মিলিয়ন ডোজ সহ ভারত মোট ১০.২ মিলিয়ন ডোজ ভ্যাকসিন সরবরাহ করেছে।
৮. বাংলাদেশের স্বাস্থ্যসেবা অবকাঠামোর জন্য ১০৯টি লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুলেন্স উপহার প্রদান।

ঘোষণা (১০)

১. মিতালী এক্সপ্রেস – ঢাকা ক্যান্টনমেন্টকে নিউ জলপাইগুড়ির সাথে সংযুক্তকারী একটি নতুন ট্রেন পরিষেবা ঘোষণা করা হয়েছে।
২. ভারত-বাংলাদেশের উদ্যোক্তাদের জন্য স্টার্টআপ কনক্লেভ ঘোষণা- প্রধানমন্ত্রী ভারতের স্টার্টআপ ইকোসিস্টেমের সাথে সংযোগের জন্য ৫০ জন তরুণ বাংলাদেশী উদ্যোক্তাকে ভারতে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।
৩. শিক্ষার মাধ্যমে সংযুক্তি: বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের ভারতে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে উচ্চশিক্ষার জন্য এক হাজার সুবর্ণজয়ন্তী বৃত্তি ঘোষণা।
৪. পারস্পরিক সমঝোতা বৃদ্ধি: বাংলাদেশ স্টাডিজের সুবিধার্থে দিল্লী বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু চেয়ার ঘোষণা।
৫. প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী সাতক্ষীরার শ্যামনগরের ঐতিহাসিক যশোরেশ্বরী মন্দির পরিদর্শন করেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছিলেন, সাতক্ষীরার শ্যামনগরের মানুষের সুবিধার্থে ভারত সরকারের অনুদান তহবিলের আওতায় একটি কমিউনিটি হল-কাম-সাইক্লোন শেল্টার তৈরি করা হবে।
৬. ওড়াকান্দিতে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন যে, ভারত সরকারের অর্থায়নে ওড়াকান্দিতে শিশুদের জন্য একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় তৈরি এবং ভারত মেয়েদের জন্য একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে উন্নীত করা হবে।
৭. আমাদের বন্ধুত্বের প্রতিশ্রুতি উদযাপন: ৬ ডিসেম্বর, যে দিন ভারত বাংলাদেশকে একটি স্বাধীন জাতি হিসাবে স্বীকৃতি দিয়েছিল সে দিনটি মৈত্রী দিবস হিসেবে উদযাপিত হবে (ভারত বাংলাদেশকে স্বীকৃতিদানকারী প্রথম দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম ছিল)

৮. প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘোষণা করেছিলেন যে, বাংলাদেশের স্বাধীনতার পঞ্চাশতম বছর এবং ভারতের স্বাধীনতার ৭৫তম বছর উপলক্ষে, ‘ভারতের সেরা, বাংলাদেশের সেরা প্রদর্শনী’ এবং ব্যবসায়িক সভা অনুষ্ঠিত হবে।

৯. প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘোষণা করেছিলেন যে ২০২২ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত প্রথম এয়ার শোতে ভারত অংশ নেবে।

১০. প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী ঘোষণা করেছিলেন যে, ভারত বাংলাদেশের যাদুঘরগুলিতে প্রদর্শনের জন্য বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে ভারতীয় বাহিনী দ্বারা ব্যবহৃত সামরিক সরঞ্জাম দান করবে।

0Shares