ভবিষ্যৎ মহামারি মোকাবিলায় চুক্তিতে ২৩ দেশের সম্মতি

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ৫:১৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩১, ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ::

মহামারি থেকে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে রক্ষায় প্রস্তাবিত একটি চুক্তিতে সম্মতি দিয়েছে বিশ্বের ২৩টি দেশ।
মঙ্গলবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রস্তবিত চুক্তিতে সায় দেয় এসব দেশ। এরই মধ্যে চুক্তিটির অনুমোদন দিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রধান টেড্রোস আধানোম গেব্রেয়াসুস।

চুক্তিটি ভবিষ্যৎ মহামারি মোকাবিলায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে জানিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রধান।গতবছর প্রথম এ ধরনের চুক্তির কথা তুলে ধরেন ইউরোপিয়ান কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট চার্লস মিশেল। মহামারিতে টিকা ও ওষুধের সমান অধিকার নিশ্চিতের কথা বলেন তিনি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক নতুন এই চুক্তির প্রস্তাব অনুমোদন করেছেন। তবে বিষয়টি নিয়ে এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে সমঝোতা আলোচনা শুরু হয়নি বলে কূটনীতিকেরা জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে টেড্রোস আধানোম বলেন, কোভিড-১৯ মহামারিতে যেসব ঘাটতি দেখা দিয়েছে, সেগুলো মোকাবিলা সম্ভব হবে নতুন এই চুক্তি হলে। আগামী মে মাসে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মন্ত্রী পর্যায়ের বার্ষিক সভা হবে। সেখানে সংস্থাটির সদস্য ১৯৪টি দেশের প্রতিনিধিদের সামনে খসড়া প্রস্তাবটি উত্থাপন করা হতে পারে।

কোভিড–১৯ মহামারি মোকাবিলায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ভূমিকা নিয়ে বিস্তর সমালোচনা হয়েছে। এক বছর তিন মাসের মধ্যে বিশ্বজুড়ে ২৮ লাখের বেশি মানুষের প্রাণ নিয়েছে নতুন করোনাভাইরাস। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এই ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব সম্পর্কে তথ্য গোপনে চীনকে সহায়তা করেছে বলে অভিযোগ তুলেছিল যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন।

কয়েক মাস আগে চীনের উহান ঘুরে আসা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিশেষজ্ঞরা সম্প্রতি প্রতিবেদন দিয়েছেন। সেখানে বলা হয়েছে, বাদুড় থেকে মানবদেহে এই ভাইরাসের সংক্রমণ ঘটে থাকতে পারে। এ ক্ষেত্রে অন্য কোনো প্রাণী অন্তর্বর্তী পোষক হিসেবে ভূমিকা রেখেছে বলে তাঁদের ধারণা। তবে উহানের গবেষণাগার থেকে ভাইরাসটি ছড়িয়েছে বলে যে সন্দেহের কথা বলা হয়েছিল, তার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

মঙ্গলবার ভবিষ্যৎ মহামারি মোকাবিলায় প্রস্তাবিত চুক্তিতে সম্মতি দেন ২৩ দেশের নেতারা। দেশগুলো হলো যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, স্পেন, নরওয়ে, গ্রিস, ফিজি, পর্তুগাল, রোমানিয়া, রুয়ান্ডা, কেনিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, চিলি, কোস্টারিকা, আলবেনিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো, তিউনিসিয়া, সেনেগাল, সার্বিয়া, ইন্দোনেশিয়া ও ইউক্রেন।

এ সংক্রান্ত চিঠিতে এখনো সই করেনি যুক্তরাষ্ট্র ও চীন। তবে দেশ দুটির নেতারা এই প্রস্তাবে ইতিবাচক মনোভাব দেখিয়েছেন বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক জানিয়েছেন।

0Shares