হাজী মছব্বির আলী ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে রমজানের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

প্রকাশিত: ১:৪৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৩, ২০২১

ডায়ালসিলেট ডেস্ক ::

হাজী মছব্বির আলী ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে  ৩’শ  পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী প্রদান করা হয়। সোমবার (১২ এপ্রিল)  সিলেট সদর উপজেলার হাউসা উত্তর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে গরীব ও অসহায়দের মাঝে পবিত্র মাহে রমজানে  খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

ফাউন্ডেশনের সভাপতি আলী হোসাইনের সভাপতিত্বে ও মো. হেলাল উদ্দিনের পরিচালনায় বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের সাবেক প্রিন্সিপাল হায়াতুল ইসলাম আখঞ্জি।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ড. হোসাইন আহমদ, হাউসা উত্তর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নাদিরা সুলতানা, হাউসা উত্তর উচ্চ বিদ্যালয় কমিটির সভাপতি আখতার হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার মো. লায়েক নুর।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, ডিস্ট্রিক্ট কর্ডিনেটর সদস্য শোয়েব আহমদ, প্রজেক্ট ম্যানেজার নুরুল আলম,  অফিস অ্যাডমিনিস্ট্রেটর আবুল কালাম আজাদ, সাইদুর রহমান, সাইব আহমদ, লাকি মিয়া, ইমাদ উদ্দিন, খলিলুর রহমান, মাহফুজ আহমদ, আল আমিন, আব্দুর রহমান প্রমুখ।

এসময় অতিথিরা বলেন, সিলেটের প্রবাসীরা সব সময়ই দেশের আর্ত সামাজিক উন্নয়নে অবদান রাখছেন। কেউ  ব্যক্তিগত ভাবে আবার কেউ সাংগঠনিক ভাবে দেশের মানুষকে সহায়তা করে যাচ্ছেন। এমনই একটি অরাজনৈতিক সামাজিক ও দ্বাতব্য সংগঠন হাজী মছব্বির আলী ফাউন্ডেশন।

জালালাবাদ থানার হাউসা গ্রামের মরহুম হাজী মছব্বির আলীর তৃতীয় পুত্র যুক্তরাজ্য প্রবাসী এম এ খালিকের প্রতিষ্টিত সংগঠনটি ২০১০ থেকে তাঁর কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

সংগঠনের প্রতিষ্টাতা এম এ খালিক এই সংগঠনের মাধ্যমে নিজ এলাকায় অসহায় গরীব লোকদের বিভিন্নভাবে সাহায্য সহযোগীতা করে আসছেন। বর্তমানে ফাউন্ডেশনরে কার্যক্রম বিস্তার লাভ করায় ২০১৭ সালে সিলেট জেলার বিশ্বনাথ থানার মুন্সির বাজার এলাকায় ফাউন্ডেশনের একটি অপারেশনাল অফিস স্থাপন করে কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

ফাউন্ডেশনটি ২০২০ সালে জুন মাসে যুক্তরাজ্য চ্যারিটি কমিশন থেকে রেজিস্ট্রেশন লাভ করে। যার চ্যারিটি নাম্বার- ১১৮৯৯৮৮। ফাউন্ডেশনটির যুক্তরাজ্য ট্রাষ্টি বোর্ডের সদস্যারা হচ্ছেন- চেয়ারম্যান স্যার পল এডওয়ার্ড, সিইও ব্রেন্ডেট সো, অডিট কমিটির চেয়ারম্যান মিষ্টার পিটার হ্যানিংটন।

ফাউন্ডেশনটি গত বৎসর বিভিন্ন কার্যক্রমে যেসব সমাজসেবা মূলক কাজ করে আসছে তারমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো-  ১২ টি গৃহনির্মাণ, ১৫ টি ডিপ টিউবওয়েল স্থাপন, ৫ টি স্যানিটারি ল্যাট্রিন স্থাপন, ৩৩টি বিবাহ অনুদান,  ২৭ টি স্বাস্থ্য অনুদান।

এছাড়াও ফাউন্ডেশনটির রামাদান ফুড ডিষ্ট্রিভিউশন নামে একটি প্রোগ্রাম চালু রয়েছে। এই প্রোগ্রামের আওতায় গত রামাদ্বানে ৫৮৭ টি পরিবারকে খাদ্য সহায়তা করা হয়েছে। এছাড়া কোভিট-১৯ (করোনা) দুর্গতদের মধ্যে প্রত্যেক পরিবারে ২৫ কেজি করে  ৪৬১টি পরিবারকে খাদ্য সহায়তা করা হয়েছে। বর্তমানে এই ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে স্যানিটারি ল্যাট্রিন ও টিউবওয়েল একসাথে করার নতুন প্রজেক্ট হাতে নেয়া হয়েছে।  যা বিভিন্ন জনবহুল স্থান- বাজার, স্কুল- কলেজ ও মাদ্রাসায় স্থাপন করা হবে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

0Shares