বাবরের রান না পাওয়ার জন্য দায়ী তিন সতীর্থ!

প্রকাশিত: ১:২৩ অপরাহ্ণ, মে ৮, ২০২১

স্পোর্টস ডেস্ক:

বাবর আজমের ক্যারিয়ারে এমন টানা ব্যর্থতা দেখা যায়নি খুব একটা। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে যেমন দেখা যাচ্ছে। হারারেতে সিরিজের প্রথম টেস্টে গোল্ডেন ডাকে ফেরার পর দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসেও মাত্র ২ রান করেছেন পাকিস্তান অধিনায়ক।

‘রানমেশিন’ হিসেবে পরিচিত বাবর আজম জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে কেন এমন ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছেন? এটা কি মেনে নেয়া যায়? পাকিস্তানের সাবেক গতিতারকা শোয়েব আখতারও মানছেন, এই সিরিজে বাবরের ৩০০-৪০০ রান করা উচিত ছিল। সেটার আর সুযোগ নেই কার্যত।

কেমন এমন হলো? শোয়েব আখতার এর কারণ খুঁজতে গিয়ে টেনে আনলেন অদ্ভুত এক যুক্তি। তার মতে, বাবরের দলের টপঅর্ডার ব্যাটসম্যানরাই রানবঞ্চিত করে রেখেছে দলীয় অধিনায়ককে।

পিটিভি স্পোর্টসের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে শোয়েব বলেন, ‘বাবর আজম রান পাচ্ছে না, এটা খুবই দুশ্চিন্তার ব্যাপার। এই দলটির বিপক্ষে (জিম্বাবুয়ে) তার নিজের সুযোগের জন্য অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে। কারণ দুই ওপেনার আর তারপর আজহার আলি বড় ইনিংস খেলেছেন। বাবরকে ওই সময়টায় প্যাড পরে নিজেকে প্রস্তুত রাখতে হচ্ছে, টেস্ট ক্রিকেটে যেটা সবচেয়ে সুন্দর এবং একইসঙ্গে বাজে একটা ব্যাপার।’

‘রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস’খ্যাত পাকিস্তানের সাবেক পেসার যোগ করেন, ‘আপনাকে এখানে বসে থাকতে হবে এবং মনোযোগ দিয়ে খেলা দেখতে হবে। খুব বেশি কথা বলারও সুযোগ নেই। তাই বলা যায়, এটা কোয়ারেন্টাইনের মধ্যে আরেকটা কোয়ারেন্টাইন।’

তবে ক্রিকেটে অনেক সময় অফফর্ম যায়, এটাকে স্বাভাবিক হিসেবেই দেখছেন শোয়েব। তার বিশ্বাস, বাবর যে মানের ব্যাটসম্যান খুব দ্রুতই তিনি রানে ফিরতে পারবেন।

শোয়েবের ভাষায়, ‘মাঝেমধ্যে এমন হতে পারে। আপনি হয়তো রান পাবেন না। কিন্তু আমি নিশ্চিত বাবর তার সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করছে। তার ওপর আমাদের প্রত্যাশা অনেক বেশি। তাই আমাদেরও ইতিবাচক থাকার চেষ্টা করতে হবে।’

সিরিজের প্রথম টেস্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এক ইনিংস এবং ১১৬ রানের বড় ব্যবধানে জয় পায় পাকিস্তান। ওই টেস্টে ওপেনার ইমরান বাট (৯১) আর আবিদ আলি (৬০) দুজনই রান পান। তিন নম্বরে নেমে আজহার আলিও খেলেন ৩৬ রানের ইনিংস।

দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে ইমরান বাট ব্যর্থ (২) হলেও আবিদ আর আজহার দুজনই সেঞ্চুরি পেয়েছেন। দ্বিতীয় উইকেটে তারা যোগ করেন ২৩৬ রান।বাবর আজমের তাই ব্যাটিংয়ে নামতে হয়েছে অনেকটা সময় অপেক্ষা করে।

 

0Shares