আফগান সীমান্ত বন্ধ করে দেবে পাকিস্তান

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ১২:৩২ অপরাহ্ণ, জুন ২৮, ২০২১

ডায়ালসিলেট ডেস্ক :: আফগানিস্তানে তালেবান ফের ক্ষমতায় গেলে পাকিস্তান সীমান্ত বন্ধ করে দেবে বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেইশি। একইসঙ্গে, মার্কিন বাহিনী প্রত্যাহারের পরে আফগানিস্তানে সহিংসতা ও অরাজকতা আবারো মাথা চাড়া দিয়ে উঠতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তিনি। গত রোববার মুলতানে সাপ্তাহিক মিডিয়া ব্রিফিংয়ে এসব কথা জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রভাবশালী এ মন্ত্রী।

শাহ মাহমুদ কোরেইশি বলেছেন, পাকিস্তান ইতোমধ্যে থেকে ৩৫ লাখ আফগান শরণার্থী গ্রহণ করেছে। এর বেশি আর নিতে পারবে না।

তিনি বলেন, আমরা আর (আফগান শরণার্থী) নিতে পারব না, সীমান্ত বন্ধ করতেই হবে। আমাদের জাতীয় স্বার্থের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে।

পাকিস্তানি মন্ত্রী আরও বলেন, আফগানিস্তানে শান্তিপ্রতিষ্ঠায় কূটনৈতিক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে পাকিস্তান এবং দেশটিতে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্বাচিত সরকারকে স্বাগত জানাবে।

১৯৮৯ সালে সোভিয়েত বাহিনী প্রত্যাহারের পর আফগানিস্তানে বিভিন্ন গোষ্ঠীর সংঘর্ষের জেরে লাখ লাখ আফগান নাগরিক পালিয়ে পাকিস্তানে আশ্রয় নেয়।

মার্কিন বাহিনীর হাতে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার আগপর্যন্ত আফগানিস্তান শাসন করেছে তালেবান। ২০০১ সালে ৯/১১ হামলার জেরে আফগানিস্তানে সামরিক অভিযান শুরু করে মার্কিন বাহিনী। এর প্রায় ২০ বছর পর চলতি বছরের ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দেশটি থেকে সব সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাপ্রত্যাহার এবং কাতারের রাজধানী দোহায় আফগান-তালেবান শান্তিআলোচনা সত্ত্বেও আফগানিস্তানে সাম্প্রতিক দিনগুলোতে ব্যাপক সহিংসতা চলছে। এতে গত কয়েক সপ্তাহে সেখানে সরকারি-বেসরকারি অনেক লোক প্রাণ হারিয়েছেন।

বর্তমানে আফগানিস্তানের একাংশ নিয়ন্ত্রণ করছে তালেবান। শান্তিআলোচনা সফল হলে তারা আবারো আফগান সরকারের অংশ হয়ে উঠবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সূত্র: এপি, আরব নিউজ

ডায়ালসিলেট/এম/এ

0Shares