সিলেটে কেমন যাচ্ছে লকডাউনের দ্বিতীয় দিন

প্রকাশিত: ১১:০১ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২, ২০২১

সিলেটে কেমন যাচ্ছে লকডাউনের দ্বিতীয় দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক :: কোভিড-১৯ ঊর্ধ্বগতি রোধে সরকার ঘোষিত সর্বাত্মক লকডাউনের দ্বিতীয় দিন চলছে। কঠোর বিধি নিষেধ বাস্তবায়নে গতদিনের মতো আজও মাঠে রয়েছে পুলিশ, র‌্যাব ও সেনাবাহিনী। তারা নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে টহল দিচ্ছেন। গাড়ি দাঁড় করিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন।

সর্বাত্মক লকডাউনের প্রথম দিনে সর্বোচ্চ ১৪৩ জনের মৃত্যু ও ৮ সহস্রাধিক ব্যক্তির আক্রান্তের খবর দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। এই তথ্যে জনমনে শঙ্কা বেড়েছে। সে কারণে শুক্রবার সকালে সড়কে লোকজন কম দেখা গেছে। এছাড়া সকাল থেকে বৃষ্টি হওয়ায় অনেকেই প্রয়োজন থাকলেও ঘর থেকে বের হয়নি।

খোঁজ নিয়ে জানা আছে, নগরীর বিভিন্ন কাঁচাবাজারে আজ সকালে লোকজনের উপস্থিতি ছিল। ছুটির দিন সকালে নগরবাসীর অনেকেই বাজার করে থাকেন। লকডাউন বাস্তবায়নে এবার সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত সব অফিস সাত দিনের জন্য বন্ধ রয়েছে।

কঠোর লকডাউন কার্যকর করতে পুলিশ, বিজিবির পাশাপাশি সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। সকাল থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি সেনাবাহিনী, বিজিবি ও র‌্যাব সদস্যদের টহল দিতে দেখা গেছে।

লকডাউন বাস্তবায়নে র‍্যাব, পুলিশ ও সেনাবাহিনীর পাশাপাশি মাঠে ছিলেন সিলেট জেলা প্রশাসনের ৩৩ জন ম্যাজিস্ট্রেট। যারা যথাযথভাবে লকডাউন পালন ও স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ নিশ্চিত করতে সিলেট মহানগর ও সকল উপজেলা পর্যায়ে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছেন।

চলমান লকডাউন অমান্য করে প্রথম দিন অযৌক্তিক কারণে বাইরে বের হওয়ায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে লকডাউনের বিধিনিষেধ অমান্য করার দায়ে ১৭২টি মামলা করা হয়। এসময় অযথা ঘোরাফেরার দায়ে ২ লক্ষ ৬০০ টাকা জরিমানা করেন তারা।

এদিকে লকডাউন বিধি নিষেধ অমান্য করায় সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর উপস্থিতিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত বিভিন্ন স্থানে ২৫ জনকে ১১ হাজার টাকা জরিমানা করে।

তাছাড়া সর্বাত্মক লকডাউনের প্রথম দিনে ৪৮টি মামলা ও ১০৪টি যানবাহন আটক করেছে সিলেট মহানগর পুলিশ।

এসএমপি জানায়, পুলিশের অভিযানে ০৯টি সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ৩০টি মোটরসাইকেল, ০২টি প্রাইভেট কার ও অন্যান্য ০৭টি যানবাহনে সর্বমোট ৪৮টি মামলা এবং ১৮টি সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ৫৯টি মোটরসাইকেল, ০৩টি প্রাইভেট কার, ২৪টি অন্যান্য যানবাহনসহ মোট ১০৪টি গাড়ি আটক করা হয়।

এদিকে লকডাউন বাস্তবায়নে সিলেটে সকাল থেকেই মাঠে ছিল র‍্যাব, পুলিশ ও সেনাবাহিনীর একাধিক টিম। এর মধ্যে পুলিশের নগর পুলিশের ১৬টি বিশেষ টিম, র‍্যাবের পাঁচটি পেট্রোল টিম, পাঁচ প্লাটুন বিজিবি ও সেনাবাহিনীর একাধিক টিম শহরজুড়ে লকডাউন পর্যবেক্ষণ করে। এছাড়া কোর্ট পরিচালনা কাজেও সার্বিক সহায়তা করে তারা।

এর আগে কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে বৃহস্পতিবার ১ জুলাই থেকে ৭ জুলাই পর্যন্ত সিলেট নগরীর পয়েন্টে পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েন থাকবে বলে জানান মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. নিশারুল আরিফ। এছাড়া বিনা কারণে কেউ বাসার বাইরে বের হলে নেয়া হবে কঠোর ব্যবস্থা এবং যৌক্তিক কারণ দেখাতে না পারলে গ্রেপ্তার করা হবে বলে জানান তিনি।

আজ শুক্রবারও এ অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ঘোষণা অনুযায়ী অকারণে ঘর থেকে বের গ্রেপ্তার বা জরিমানার সম্মুখীন হতে হবে। গ্রেপ্তার বা শাস্তি এড়াতে ঘরে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন সিলেট মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) বি এম আশরাফ উল্যাহ তাহের।

ডায়ালসিলেট/এম/এ/

0Shares

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ