লকডাউনের চতুর্থ দিনে

সিলেটে জনসমাগম বৃদ্ধি, তৎপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ১১:৩৮ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৪, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক :: করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকার ঘোষিত সাতদিনব্যাপী কঠোর লকডাউন চলেছে। লকডাউন কার্যকরে মাঠে রয়েছেন পুলিশ, সেনাবাহিনী, বিজিবি, র‌্যাব ও আনসার সদস্যরা। লকডাউনের শুরু থেকেই বিভিন্ন জায়গায় টহল দিতে দেখা গেছে তাদের। এর ধারাবাহিকতায় লকডাউনের চতুর্থ দিন রোববার (৪ জুলাই) সিলেটের বিভিন্ন স্থানে চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি ও টহল দিচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

সিলেটের প্রবেশদ্বার দক্ষিণ সুরমা, বাইপাস সড়ক, কুমারগাঁও তেমুখী, শাহপরাণ গেইট, বিমানবন্দর সড়কসহ বিভিন্ন জায়গায় চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জিজ্ঞাসাবাদের মুখে পড়ার পাশাপাশি অনেককে জরিমানা করা হচ্ছে। তবে জরুরি পরিষেবায় নিয়োজিতরা পরিচয়পত্র দেখিয়ে ও প্রয়োজনীয়তার বিষয়টি তল্লাশির সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জানিয়ে গন্তব্যে বা কর্মস্থলে যেতে পারছেন। তবে লকডাউনে গত তিনদিনের যে চিত্র সিলেটে ছিলো চতুর্থ দিনের লকডাউনে সড়কগুলোতে যানবাহন ও জনসমাগম কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে।

জানা আছে, কঠোর লকডাউন কার্যকর করতে পুলিশ, বিজিবির পাশাপাশি সেনাবাহিনী কাজ করে যাচ্ছে। রোববার (৪ জুলাই) সকাল থেকে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের তত্ত্বাবধানে সিলেটের বিভিন্ন স্থানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি সেনাবাহিনী, বিজিবি ও র‌্যাব সদস্যদের টহল দিতে দেখা গেছে। চলমান লকডাউন অমান্য করে প্রথম দিন অযৌক্তিক কারণে বাইরে বের হওয়ার অভিযোগে সিলেট মহানগরীসহ ১৩টি উপজেলায় ৩৩টি মোবাইল টিম অভিযান পরিচালনা করেছে।

এদিকে শনিবার লকডাউনের বিধি নিষেধ অমান্য করায় সিলেট মহানগর পুলিশের অভিযানে সিএনজি অটোরিকশা ৩৩ টি, মোটরসাইকেল ৬০ টি, প্রাইভেট কার ১৭ টি ও অন্যান্য ৯ টি মামলাসহ সর্বমোট ১১৯টি মামলা দায়ের করা হয়।এছাড়া সিএনজি অটোরিকশা ৫১ টি, মোটরসাইকেল ৮৫ টি, প্রাইভেট কার ৬ টি, অন্যান্য ৭৬ টি সহ ২১৮ টি যানবাহন আটক করা হয়।

অপরদিকে পুলিশি ডিউটিতে সেনাবাহিনী ও বিজিবির যৌথ অভিযানে ভ্রাম্যমাণ আদালত কর্তৃক লকডাউন বিধিনিষেধ ভঙ্গ করায় নগরীর বিভিন্ন স্থানে ৭৬ হাজার ৩শ’ টাকা জরিমানা আদায় এবং ১ জনকে আটকও করা হয়।

সিলেট মহানগর পুলিশের উপ পুলিশ কমিশনার আশরাফ উল্যাহ তাহের বলেন, পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক দল লকডাউন বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। টহল পুলিশের পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে মোড়ে চেকপোস্ট বসিয়ে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে। সেই সাথে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের তত্ত্বাবধানে মাঠে কাজ করে যাচ্ছে একাধিক টিম। কেউ লকডাউন না মেনে বাহির হলে তার বিরুদ্ধে নেয়া হচ্ছে জরিমানার পাশাপাশি আইনি ব্যবস্থা।

ডায়ালসিলেট/এম/এ/

0Shares