সিসিকের অভিযান নিয়ে বিরূপ মন্তব্য, ব্যবসায়ী কারাগারে

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ১০:৫৭ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৯, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেটে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে মামলা করলো সিসিক। সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের নামে লুটপাট হচ্ছে এমনটা দাবি করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন ব্যবসায়ী আতিক। তিনি নগরীর বৃহত্তর মদিনা মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক।

এরই জের ধরে তার বিরুদ্ধে গত মঙ্গলবার (৬ জুলাই) ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ দপ্তরের কর্মকর্তা আব্দুল আলিম শাহ। বুধবার (৭ জুলাই) রাতে মহানগর পুলিশের জালালাবাদ থানা-পুলিশের একটি দল মদিনা মার্কেট এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার। বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করে পুলিশ। গ্রেপ্তার হওয়া আতিক মহানগর যুবলীগের একজন কর্মী। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে, ব্যবসায়ী সংগঠনের মাধ্যমে লকডাউনে খুদে ব্যবসায়ীদের পসরা সাজিয়ে প্রতিদিন ৫০ হাজার টাকা চাঁদা উত্তোলন করেন তিনি।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন জালালাবাদ থানার ওসি নাজমুল হুদা খান। তিনি বলেন, ফেসবুকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিরুদ্ধে স্ট্যাটাস দেয়ায় সিসিকের পক্ষ থেকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে থানায় মামলা করা হলে পুলিশ ব্যবসায়ী আতিককে গ্রেপ্তার করে। মামলাটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫, ২৯, ৩১ নম্বর ধারায় করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে বলা হয়, নগরীর পশ্চিম-উত্তর দিকের অন্যতম জমজমাট এলাকা হচ্ছে মদিনা মার্কেট মোড়। সেখানে লকডাউনের বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে রাস্তার পাশে অস্থায়ী হাট বসেছিল। এ খবর পেয়ে ৪ জুলাই সিটি করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও স্থানীয় দুজন ওয়ার্ড কাউন্সিলর মখলিছুর রহমান কামরান, ইলিয়াছুর রহমানকে নিয়ে অভিযান চালান। এ সময় সিসিকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুনন্দা রায় পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত কয়েকজন ব্যবসায়ীকে জরিমানা করে সবাইকে সতর্ক করে দেন। এ অভিযানের দিন রাত প্রায় ১১টায় মো. আতিক তাঁর ফেসবুক আইডিতে ছবি দিয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন। এতে অভিযান পরিচালনাকারীদের ‘মেয়রের গুন্ডা বাহিনী’ বলে অভিযোগ করেন তিনি।

মামলার বাদী সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ দপ্তরের কর্মকর্তা আলিম শাহ বলেন, মো. আতিক ফেসবুক স্ট্যাটাস দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান নিয়ে অপপ্রচার ও ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করেন। ওই স্ট্যাটাসের পাশাপাশি তিনি আরও কয়েকটি স্ট্যাটাস ও নানা রকম ছবি-ভিডিও ফেসবুকে আপলোড করেন। দুই দিন ধরে এ তৎপরতা পর্যবেক্ষণ করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হয়।

তবে এ ব্যাপারে বৃহত্তর মাদিনা মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আমির হোসেন কোনো কথা বলতে রাজি হননি। ফেসবুকে মো. আতিকের স্ট্যাটাস ব্যক্তিগত বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘আমরা সংগঠনের পক্ষ থেকে এসব নিয়ে কিছু বলতে চাই না।’

ডায়ালসিলেট/এম/এ/

0Shares