যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে নিপীড়নের অভিযোগ চীনের

প্রকাশিত: ২:১৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৭, ২০২১

যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে নিপীড়নের অভিযোগ চীনের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক::যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ চীনের। দুই দেশের উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে চীন জানিয়েছে, বেইজিংয়ের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র নিপীড়ন (অপ্রেসিং) চালাচ্ছে। চীনের বিরুদ্ধে দেয়া অবরোধ ও উচ্চ হারে শুল্ক প্রত্যাহারের জন্য ওয়াশিংটনের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে ওই বৈঠকে। চীনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় বন্দর নগরী তিয়ানজিনে সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের ডেপুটি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়েন্ডি শেরম্যানের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই’র। তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, সঠিক পথ বেছে নিতে হবে যুক্তরাষ্ট্রকেই। জবাবে ওয়েন্ডি শেরম্যান বলেছেন, চীনের সঙ্গে সংঘর্ষ চায় না ওয়াশিংটন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

কয়েক মাসের মধ্যে চীন সফরে আসা মার্কিন সবচেয়ে সিনিয়র কর্মকর্তা হলেন মিস শেরম্যান।

উভয়ের জন্য এবং বিস্তৃত বিশ্বের জন্যই এই দুটি দেশের মধ্যকার সম্পর্ক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের অধীনে এ সম্পর্ক তলানিতে গিয়ে ঠেকে। সেই সম্পর্ককে উন্নত করার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসনের প্রতি বার বার আহ্বান জানিয়েছে বেইজিং। প্রেসিডেন্ট বাইডেনও চীনের প্রতি মোটামুটি কঠোর অবস্থান নিয়েছেন। বিশেষ করে মানবাধিকার ও অবরোধের ইস্যুতে।

সোমবার দিনের শুরুতে চীনের উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী সিই ফেং বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র তার দেশকে ভয় দেখাচ্ছে। কারণ, তারা চীনকে কল্পিত এক শত্রু হিসেবে দেখে। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতি অনুযায়ী এরও আগে তিনি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র তার নিজের অবকাঠামোগত সমস্যার জন্য চীনকে দায়ী করতে চায়। বিষয়টা এমন যে, যদি চীনের উন্নয়নকে নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়, তাহলে যুক্তরাষ্ট্র আবাও গ্রেট হবে।

সোমবারের বৈঠক শেষে মিস শেরম্যান বলেন, সামনের মাসগুলোতে অবস্থার পরিবর্তন হবে কিনা তা বলা কঠিন। তার ভাষায়, এখনও সম্পর্ক গড়ে তোলার প্রাথমিক পর্যায়ে আমরা। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এর আগে বলেছে, যুক্তরাষ্ট্র আশা করে যুক্তরাষ্ট্রের স্বার্থে খোলামেলা কথা হবে এবং সম্পর্কে অগ্রগতি হবে।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে এই বৈঠককে দেখা হচ্ছে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের মধ্যে একটি বৈঠকের প্রস্তুতিমূলক প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে। সোমবারের আলোচনায় এ নিয়ে কোনো কথা হয়নি বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। ওই আলোচনা প্রায় চার ঘন্টা স্থায়ী হয়েছিল। এই দুটি দেশের মধ্যে সম্প্রতি উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছে। গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী উইলবার রোজসহ বেশ কিছু ব্যক্তি ও সংগঠনের বিরুদ্ধে অবরোধ দিয়েছে চীন।

ডায়ালসিলেট এম/৫

0Shares