৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ইউনিট কমিটি না হলে ভেঙে দেয়া হবে থানা-ওয়ার্ড কমিটি

প্রকাশিত: ৯:৫৭ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৯, ২০২১

৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ইউনিট কমিটি না হলে ভেঙে দেয়া হবে থানা-ওয়ার্ড কমিটি

ডায়ালসিলেট ডেস্ক::তৃণমূল পর্যায় থেকে সংগঠনকে সুসংগঠিত করার লক্ষ্যকে সামনে রেখে ইউনিট, থানা ও ওয়ার্ড সম্মেলন করতে আটটি সাংগঠনিক টিম গঠন করেছে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ।

নগর নেতাদের সমন্বয়ে গঠিত দক্ষিণের আওতাধীন আটটি সংসদীয় আসনে টিমগুলোকে সাংগঠনিক দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে। দায়িত্বপ্রাপ্ত কমিটিগুলোকে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে প্রতিটি ওয়ার্ডের ইউনিট কমিটি গঠন করে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে অবহিত করতে বলা হয়েছে।

কোনো থানা বা ওয়ার্ড নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কমিটি গঠনে ব্যর্থ হলে ওই থানা বা ওয়ার্ড কমিটি ভেঙে সেখানে আহব্বায়ক কমিটি গঠন করা হবে বলেও হুশিয়ার করা হয়েছে।

বুধবার রাতে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ যুগান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আবু আহমেদ মন্নাফী ও সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির এই কমিটি অনুমোদন করেছেন।

রিয়াজ বলেন, সংগঠনকে সুসংগঠিত করার লক্ষ্যকে সামনে রেখে কেন্দ্রীয় নেতাদের নির্দেশনায় এই আটটি টিম গঠন করা হয়েছে। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক এই টিমের সদস্যদেরকে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ করতে বলেছেন।

গঠিত এক নম্বর টিমে আছেন- আওলাদ হোসেন, হেদায়েল ইসলাম স্বপন, আবুল কালাম আজাদ, ইসমাইল হোসেন, মজিবুর বহমান, ফাতেমা আক্তার ডলি, আলিমুজ্জামান আলম। তারা ঢাকা-২ আসনের কামাঙ্গীরচর থানার দায়িত্ব পালন করবেন।

দুই নম্বর টিমে আছেন- ডা. দিলীপ কুমার রায়, মিরাজ হোসেন, মো. আবুল বাসার, অ্যাড. মোহাম্মদ জগলুল কবির, এসএম সহিদুল ইসলাম মিলন, ওমর বিন আবদুল আজিজ তামিম, রাশেদুল মাহমুদ রাসেল, অ্যাড. আসমা আক্তার কেকা, আইয়ুব আলী খান। তারা ঢাকা-৪ সংসদীয় আসনের শ্যামপুর ও কদমতলী থানার দায়িত্ব পালন করবেন।

তিন নম্বর টিমে আছেন- মিজবাহুর রহমান ভুইয়া রতন, শরিফুদ্দিন আহমেদ সেন্টু, গোলাম সারোয়ার কবিরসহ ৯ জন। তারা ঢাকা-৫ সংসদীয় আসনের যাত্রাবাড়ী ও ডেমরা থানার দায়িত্ব পালন করবেন।

চার নম্বর টিমে আছেন- সাদেজা বেগম, শেখ মুহাম্মদ আজাহারহ ৯ জন। তারা ঢাকা-৬ সংসদীয় আসনের দায়িত্ব পালন করবেন।

পাঁচ নম্বর টিমে আছেন- মো. সহিদ, গোলাম আশরাফ তালুকদারসহ ৯ জন। তারা ঢাকা-৭ আসনের লালবাগ, কোতয়ালী, বংশাল ও চকবাজার থানার দায়িত্ব পালন করবেন।

ছয় নম্বর টিমে আছেন- আব্দুস সাত্তার মাসুদ, কাজী মোর্শেদ হোসেন কামাল, শাহে আলম মুরাদসহ ৯ জন। তারা ঢাকা-৮ সংসদীয় আসনের মতিঝিল, পল্টন রমনা ও শাজাহানপুর থানার দায়িত্ব পালন করবেন।

সাত নম্বর টিমে আছেন- শহিদ সেরনিয়াবাত, খন্দকার এনায়েত উল্যাহ, আকতার হোসেনসহ ৯ জন। তারা ঢাকা-৯ সংসদীয় আসনের সবুজবাগ, খিলগাঁও ও মুগদা থানার দায়িত্ব পালন করবেন।

আট নম্বর টিমে আছেন- নুরুল আমিন রুহুল এমপি, মহিউদিদ্দন মহিসহ ৮ জন। তারা ঢাকা-১০ সংসদীয় আসনের ধানমণ্ডি, হাজারীবাগ, কলাবাগান ও নিউমার্কেট থানার দায়িত্ব পালন করবেন।

দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতৃবৃন্দকে কিছু দিকনির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। তাদের সিদ্ধান্তগ্রহণ ও দায়িত্ব পালনে পদমর্যাদাক্রম অনুসরণ করতে বলা হয়েছে।
এছাড়া প্রতিটি ওয়ার্ডের আওতায় নির্বাচন কমিশন নির্ধারিত ভোটকেন্দ্র (ভেন্যু) ভিত্তিক ইউনিট গঠনের লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অনুসারী প্রকৃত কর্মী বাছাই করে গঠণতন্ত্র নির্দেশিকা পদ্ধতিতে কমিটি গঠন করে তাদের যোগ্যতা অনুযায়ী স্থান দিতে বলা হয়েছে।

আওয়ামী লীগের গঠণতন্ত্রের ৩৫ ধারার ১ উপধারা অনুযায়ী কমপক্ষে ১৫০ জন সদস্য কোনো ইউনিটে না থাকলে সেটি শাখা ইউনিট মর্যাদাপ্রান্ত হবে না।

নির্দিষ্ট সংসদীয় আসনের অন্তর্গত থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্ব স্ব থানার আওতাধীন ওয়ার্ড ও ইউনিট কমিটি গঠন কার্যক্রমে সম্পৃক্ত থাকবেন এবং শক্তিশালী কমিটি গঠনের ব্যাপারে কার্যকর ভূমিকা রাখবেন।

ইউনিট, ওয়ার্ড এবং থানা শাখা কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী নির্দেশিত পদ্ধতি অনুসরণ উল্লেখিত শাখা কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে লক্ষ্য রাখতে হবে যেন, চিহ্নিত চাঁদাবাজ, মাস্তান, নেশাগ্রস্ত এবং বিএনপি ও জামায়াত থেকে আগত সুবিধাভোগীরা কোনোভাবেই কমিটিতে স্থান না পায়, সে বিষয়ে সর্তক থাকতে বলা হয়েছে।

ডায়ালসিলেট এম/

0Shares