সাকলায়েনকে ডিবির দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার

প্রকাশিত: ৭:২৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৭, ২০২১

সাকলায়েনকে ডিবির দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার

ডায়ালসিলেট ডেস্ক;:ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের গুলশান বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার গোলাম সাকলায়েন শিথিলকে ‘সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে’ বলে জানিয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।

আজ শনিবার (৭ আগস্ট) দুপুরে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অতিরিক্ত কমিশনার হাফিজ আক্তার বলেন, ‘শিথিলের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ এসেছে। তাকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। তার বিরুদ্ধে তদন্ত হবে। ডিএমপি ও পুলিশ সদর দপ্তর থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে।’

ডিবি কর্মকর্তা সাকলায়েনকে অতিরিক্ত উপ-কমিশনার হিসেবে পুলিশের পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্টে  (পিওএম) পদায়ন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার (গণমাধ্যম) ফারুক হোসেন।

গত বুধবার র‌্যাবের মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার হওয়া চিত্রনায়িকা পরীমণিকে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় সিআইডিতে হস্তান্তর করেছে বনানী থানা পুলিশ। গত বৃহস্পতিবার তার বিরুদ্ধে বনানী থানায় মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করেছে র‌্যাব।

পরীমণির নানা অপরাধের সূত্র অনুসন্ধানের প্রাথমিক পর্যায়েই গণমাধ্যমে উঠে আসে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের গুলশান বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার গোলাম সাকলায়েন শিথিলের সঙ্গে পরীমণির ‘অন্তরঙ্গতা’র কথা।

ঢাকার আশুলিয়ার বোট ক্লাবে ‘ধর্ষণচেষ্টা’র অভিযোগে চিত্রনায়িকা পরীমণির দায়ের করা মামলার তদন্ত কর্মকর্তার দায়িত্বে রয়েছেন ডিবি কর্মকর্তা সাকলায়েন শিথিল।

আজ দুপুরে সিআইডি কার্যালয়ে অনির্ধারিত ব্রিফিংয়ে সিআইডির ডিআইজি শেখ ওমর ফারুক বলেন, ‘মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হলেও আমরা অবশ্যই তার বিষয়েও তদন্ত করব। কেউ তো আইনের ঊর্ধ্বে না। সে যেই হোক না কেন, আমরা নিরপেক্ষ তদন্ত করে সত্যি ঘটনা উদঘাটন করব।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা থরোলি তদন্ত করব। যেকোনো বিষয় আমাদের নজরে আসবে। যে বিষয়গুলো মিডিয়াতে আসবে সেগুলো আমরা পুঙ্খানুপুঙ্খ জিজ্ঞাসা করে সত্যিকারের ঘটনাটি খুঁজে বের করব।’

পরীমণিকে জিজ্ঞাসাবাদে ইতোমধ্যে মাদকচক্রের নানা হোতাদের নাম জানতে পেরেছে র‌্যাব ও পুলিশ। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, রাজধানীর অভিজাত এলাকায় মাদকের আসর বসিয়ে ধনাঢ্যদের টার্গেট করতেন সেই হোতারা। তাদের মধ্যে একজন নজরুল ইসলাম রাজের বিরুদ্ধে দায়ের করা হয়েছে পর্নোগ্রাফির মামলাও।

মাদক মামলায় আরও গ্রেপ্তার হওয়া মডেল পিয়াসা ও মৌয়ের কাছ থেকে মাদকের হোতাদের বিষয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য পেয়েছে আইনশৃ্ঙ্খলা বাহিনী। সেই হোতাদের নজরদারিতে রেখেছে তারা।

ডিআইজি শেখ ওমর ফারুক বলেন, ‘আরও যদি কোনো প্রভাবশালী জড়িত জড়িত থাকে, তিনি যত বড় শক্তিশালী হোন না কেন, আমরা তাদের আইনের আওতায় আনব। অপরাধের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা থাকলে তা তদন্ত করে খুঁজে আনব।’

পরীমণিকে কোটি টাকার দামে গাড়ি কিনে দেওয়া এক ব্যাংক এমডির বিষয়েও তদন্ত করা হবেও বলে জানান সিআইডি কর্মকর্তা।  ‘প্রয়োজনে’ তাকে ডাকা হবে বলে জানান তিনি। সূত্র : সমকাল

ডায়ালসিলেট এম/

0Shares