সিলেটে ভ্যাকসিনেশন ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত: ১২:৩৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৭, ২০২১

সিলেটে ভ্যাকসিনেশন ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ডায়ালসিলেট ;:সারা দেশের মতো সিলেট নগরীতেও শুরু হচ্ছে জাতীয় কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনেশন ক্যাম্পেইন। আজ শনিবার সকাল ৯টায় নগরীর রেড ক্রিসেন্ট মাতৃমঙ্গল হাসপাতালে সিলেট সিটি করপোরেশন এলাকায় ‘জাতীয় কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনেশন ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এমপি।

সিসিকের আয়োজনে এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যুক্ত থেকে ভ্যাকসিনেশন ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করবেন তিনি।

সিসিকের পিআরও আলিম শাহ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, আজ শনিবার অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া শুরু হবে। ফলে অতীতে যারা অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ পাননি। তাদের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হবে।পাশাপাশি মডার্নার প্রথম ডোজ ও সিনোফার্মের টিকার দ্বিতীয় ডোজ প্রয়োগ অব্যাহত থাকবে।

সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাহিদুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, সিলেটে টিকার সংকট নেই। ইতোপূর্বে ১৯ হাজার ২০০ ডোজ মর্ডানার টিকার প্রথম চালান সিলেটে আসে। সেগুলো থেকে প্রায় ৩০ হাজার লোকজনকে মর্ডানার টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে।
শুক্রবার (০৬ আগস্ট) সিলেটে আরো দেড় লাখ ডোজ অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা, সিনোফার্ম ও মডার্নার করোনা ভ্যাকসিনের চালান এসে পৌঁছালো। এদিন সিভিল সার্জন কার্যালয়ে ইপিআই কোল্ড রুমে টিকার চালান সংরক্ষণ করা হয়।

সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. প্রেমানন্দ মণ্ডল বলেন, দেড় লাখ ডোজ টিকার চালানের মধ্যে মর্ডানার টিকা ৯৪ হাজার ডোজ, অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২৮ হাজার ডোজ, সিনোফার্মের ২৮ হাজার ডোজ।
তিনি বলেন, অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার দ্বিতীয় ডোজ যাঁরা পাননি, তাঁদের এই টিকা দেওয়া হবে। সেই সঙ্গে সিনোফার্ম ও মর্ডানার টিকাও দেওয়া হবে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, বিগত দিনে টিকার জন্য রেজিস্ট্রেশকৃত ৩ লাখ ৭৫ হাজার ৪১৬ জনের মধ্যে ৩ লাখ ৪৪২ জন প্রথম ডোজ এবং ২ লাখ ১৮ হাজার ৬৭২ জন দ্বিতীয় টিকার ডোজ পেয়েছেন। অনিশ্চয়তা কেটে অবশিষ্টরা এবার অ্যাস্ট্রাজেনেকারদ্বিতীয় পাচ্ছেন।
এদিকে, সিলেটের উপজেলা সিনোফার্মের ভ্যারোসেল ভ্যাকসিন প্রদান অব্যাহত রয়েছে। সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক এবার ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে করোনার টিকা দেওয়া হবে।এরই মধ্যে প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন স্বাস্থ্য বিভাগের সংশ্লিষ্টরা।

ডায়ালসিলেট এম/

0Shares