সিলেট জেলা ও নগরীতে গণটিকা নিলেন ৮১৩৯৭ জন

প্রকাশিত: ১০:৪২ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৮, ২০২১

সিলেট জেলা ও নগরীতে গণটিকা নিলেন ৮১৩৯৭ জন

নিজস্ব প্রতিবেদক :: দেশব্যাপী শুরু হওয়া ভ্যাক্সিনেশন কার্যক্রমে সিলেট সিটি কর্পোরেশন ও ১৩টি উপজেলায় মোট ৮১ হাজার ৩৯৭ জন টিকা গ্রহণ করেছেন। এর মধ্যে উপজেলা পর্যায়ে টিকা নিয়েছেন ৫৮ হাজার ৬৪৪ জন ও সিটি কর্পোরেশন এলাকায় গণটিকা নিয়েছেন ২২ হাজার ৭৫৩ জন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. প্রেমানন্দ মন্ডল ও সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাহিদুল ইসলাম।

সিলেটের ডেপুটি সিভিল সার্জন জন্মেজয় দত্ত জানান- সিলেট জেলার ১৩টি উপজেলায় ১০০টি কেন্দ্রে তিনটি করে ৩০০টি বুথ রয়েছে। ভ্যাক্সিনেশন ক্যাম্পেইনে প্রাথমিক পর্যায়ে প্রতিটি বুথে প্রথম দিন ৩০০ জন করে মোট টিকা দেয়া হয়। যেখানে মোট ৫৮ হাজার ৬৪৪ জন টিকা নেন।

তিনি বলেন- শনিবার ৭ আগস্ট থেকে ১২ আগস্ট পর্যন্ত সিলেটসহ সারা দেশে গণটিকার কার্যক্রম চলার কথা ছিল। তবে আপাতত শুধু একদিন চলে এ কার্যক্রম। পরবর্তীতে মন্ত্রণালয় থেকে নতুন তারিখ জানানো হবে।

এদিকে সিলেট সিলেট সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ভ্যাক্সিনেশন কার্যক্রমের প্রথম দিনে গণটিকা নিয়েছেন ২২ হাজার ৭৫৩ জন। শনিবার নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডে ৮১টি বুথে পঁচিশোর্ধ সাধারণ মানুষ এই গণটিকা নেন।

সিলেট সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাহিদুল ইসলাম জানান- এই ২২ হাজার ৭৫৩ জন শুধু ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ভ্যাক্সিনেশন কার্যক্রমে টিকা গ্রহণ করেন। যদিও একই দিন সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিয়মিত টিকা কেন্দ্রে ২৫৬০ জন টিকা নিয়েছেন। এছাড়া পুলিশ লাইন্স হাসপাতালে আরও ৫৩০ জন টিকা নেন। তবে নির্ধারিত দুটি টিকা কেন্দ্রে আজ সিনোফার্মার ২য় ডোজ দেয়া হয়নি বলে জানান তিনি।

ডা. জাহিদুল ইসলাম আরও জানান- করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সিলেট নগরীতে ৩ দিন চলবে ভ্যাক্সিনেশন ক্যাম্পেইন। সিসিকের ২৭টি ওয়ার্ডে ৮১টি কেন্দ্রে সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত টানা তিন দিন এই ভ্যাক্সিনেশন ক্যাম্পেইন চলবে। প্রথম দিন প্রতিটি কেন্দ্রে ৩শ জনকে দেয়া হয় টিকা। তবে ৮ ও ৯ আগস্ট থেকে প্রতিদিন প্রতিটি কেন্দ্রে ২শ জন নাগরিককে টিকা দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন সিসিকের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা।

সিসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাহিদুল ইসলাম বলেন, সিসিকের ২৭টি ওয়ার্ডে ৮১টি কেন্দ্রে দেয়া হচ্ছে টিকা। প্রতিটি কেন্দ্রে দুজন করে টিকাদানকর্মী ও তিনজন করে স্বেচ্ছাসেবক কাজ করছেন। এছাড়া ওয়ার্ডগুলোর কাউন্সিলরদের পক্ষ থেকেও স্বেচ্ছাসেবক রাখা হয়েছে।

নগরীতে প্রাথমিক পর্যায়ে মোট তিনদিনে ৬০ হাজার মানুষকে টিকা দেয়া হবে বলে জানান তিনি।

এর আগে শনিবার (০৭ আগস্ট) সকাল ৯টায় সিলেটের মাতৃমঙ্গল হাসপাতালে ভার্চুয়ালি ভ্যাক্সিনেশন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন সিলেট-১ আসনের সাংসদ ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ নেতৃত্বে বাংলাদেশ করোনা পরিস্থিতি দৃঢ়ভাবে মোকাবেলা করছে। করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার বিভিন্ন দেশ থেকে টিকার ব্যবস্থা করছে। সামনে আরো প্রচুর টিকা দেশে আসবে।’

তিনি বলেন, ‘গণটিকা কার্যক্রম একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। এই কার্যক্রম সামনে আরো গতিশীল হবে। সবাইকে টিকা নিতে হবে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। তবেই আমরা করোনামুক্ত বাংলাদেশ দেখতে পাব।’

ডায়ালসিলেট/এম/এ/

0Shares