বাবার লাশের পাশে বসে কাঁদতে কাঁদতেই চলে গেলেন ছেলে

প্রকাশিত: ৬:০৭ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৩, ২০২১

বাবার লাশের পাশে বসে কাঁদতে কাঁদতেই চলে গেলেন ছেলে

ডায়ালসিলেট ডেস্ক::হবিগঞ্জে মাত্র ৫ ঘণ্টার ব্যবধানে বাবা ছেলের মৃত্যু হয়েছে। বাবার লাশের পাশে বসে কাঁদতে কাঁদতেই মারা যান চিকিৎসক ছেলেও। ঘটনায় সদর উপজেলার রাজিউড়া ইউনিয়নের মথুরাপুর গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

সোমবার তাদের দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে। তারা হলেন ওই গ্রামের শিক্ষক গোলাম কিবরিয়া ওরফে দিলু মাস্টার (৭০) এবং তার ছেলে গ্রাম্য চিকিৎসক মো. রুবেল মিয়া (৩৫)।

বিষয়টি নিশ্চিত করে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ফয়জুল ইসলাম ফজল বলেন, দিলু মাস্টার দীর্ঘদিন যাবত শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত ছিলেন। বর্তমানে তিনি অবসরে বাড়িতেই ছিলেন। তার ছেলে মো. রুবেল মিয়া গ্রাম্য চিকিৎসক হিসেবে উচাইল বাজারে একটি ওষুধের দোকান পরিচালনা করতেন।

তিনি বলেন, সোমবার দুপুর ২টায় তাদের নামাজে জানাজা শেষে দাফন করা হয়েছে।

তাদের পরিবারের বরাত দিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান জানান, রোববার দিলু মাস্টার হৃদরোগে আক্রান্ত হন। তাকে নিয়ে ছেলে রুবেল মিয়া সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ১০টায় তিনি মারা যান।

রাতেই অ্যাম্বুলেন্সে করে পিতার লাশ বাড়িতে নিয়ে আসেন ছেলে রুবেল মিয়া। বাড়ি ফেরার পর অতিশোকে কান্নাকাটি করতে করতে তিনিও অজ্ঞান হয়ে যান। দীর্ঘক্ষণ পরেও আর জ্ঞান ফিরেনি। ভোর সাড়ে ৩টার দিকে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে। ততক্ষণে ছেলে রুবেল মিয়াও চলে যান না ফেরার দেশে।

ডায়ালসিলেট এম/

0Shares