দিনে ৮ ঘণ্টার বেশি বসে কাটালে স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে

প্রকাশিত: ৫:২৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৪, ২০২১

দিনে ৮ ঘণ্টার বেশি বসে কাটালে স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে

ডায়ালসিলেট ডেস্ক;:যারা দিনের বেশিরভাগ সময় বসে কাটায় তারা অন্যান্যদের তুলনায় অধিক স্ট্রোকের ঝুকিতে রয়েছে। ৬০ বছরের কম বয়স্কদের মধ্যে চালানো এক গবেষণায় ফলাফল পাওয়া গেছে। এতে বলা হয়েছে, শারীরিকভাবে যারা বেশি সক্রিয় তাদের ঝুঁকি এক্ষেত্রে অনেক কম। এই গবেষণাটি করেছে আমেরিকান হার্ট এ্যাসোসিয়েশন। এতে বলা হয়েছে, দৈনিক ৮ ঘন্টা বা এর বেশি সময় যারা বসে কাটায় এবং শারীরিকভাবে যারা সক্রিয় নন তারা স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার বড় ঝুঁকিতে রয়েছে। অপরদিকে যারা দৈনিক ৪ ঘন্টার কম সময় বসে থাকে এবং অন্তত ১০ মিনিট ব্যায়াম করে তাদের স্ট্রোকের ঝুঁকি বেশ কম। সিএনএনের খবরে জানানো হয়েছে, গবেষকরা স্ট্রোকের ইতিহাস নেই এমন ৪০ বছর বা এর অধিক বয়স্কদের ৯ বছরেরও বেশি সময় ধরে পর্যবেক্ষণ করেছেন। গবেষণা দলের প্রধান ড. রিড জুন্ডি বলেন, বেশিক্ষণ বসে থাকলে মানুষের দেহের গ্লুকোজ, লিপিড মেটাবোলিজম এবং রক্ত প্রবাহের ভারসাম্য নষ্ট হয়ে যায়। অপরদিকে এটি শরীরে প্রদাহ বৃদ্ধি করে।দীর্ঘদিন এমন অবস্থা চলতে থাকলে তা রক্তনালী ক্ষতিগ্রস্থ করে এবং এরফলে হৃদযন্ত্রের সমস্যা ও স্ট্রোকের ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। এই গবেষণায় অংশ নেন ২ হাজার ৯৬৫ জন স্ট্রোকের রোগী। তাদের মধ্যে ৯০ শতাংশই ইসকেমিক স্ট্রোকে ভুগেছেন। জুন্ডি বলেন, এটিই সবথেকে সাধারণ স্ট্রোক। এটি হয় যখন মস্তিষ্কে রক্ত প্রবাহের নালীগুলো বন্ধ হয়ে যায়। যদি দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ না করা হয় তাহলে অক্সিজেনের অভাবে ওই এলাকার কোষগুলো নষ্ট হয়ে যেতে থাকে। স্ট্রোকের কিছু সাধারণ চিহ্ন রয়েছে। এরমধ্যে আছে, পা, মুখমণ্ডল বা হাতে দুর্বলতা অনুভব করা। আবার শরীরের কোনো একটি অংশে অসাড়তা অনুভব করাও স্ট্রোকের লক্ষ্মণ। এছারা দেখা বা শোনার সমস্যাও স্ট্রোকের কারণে হতে পারে। স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে হলে প্রথমেই একজনকে তার বসে থাকার সময় কমাতে হবে। মানুষ শুধু বসে থাকার পরিবর্তে দাঁড়িয়ে থেকেও স্ট্রোকের ঝুঁকি হ্রাস করতে পারে। আবার লিফট ব্যবহারের পরিবর্তে সিঁড়ি দিয়ে বহুতল ভবনে ওঠা-নামা করলেও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে যায়। পূর্ণ বয়স্কদের প্রতি সপ্তাহে কমপক্ষে ১৫০ মিনিট মধ্যম মাত্রার ব্যায়াম করা উচিত। একেকবারে কমপক্ষে ১০ মিনিটের বেশি সময় করে এই ব্যায়াম চালিয়ে যেতে হবে। এছারা এলকোহল গ্রহণের পরিমাণ হ্রাস করাও জরুরি বলে মনে করেন গবেষকরা।

ডায়ালসিলেট এম/

0Shares