অ্যাস্ট্রাজেনেকার আরও ১৮ লাখ টিকা আসছে

প্রকাশিত: ১০:৪৬ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১১, ২০২১

অ্যাস্ট্রাজেনেকার আরও ১৮ লাখ টিকা আসছে

ডায়ালসিলেট ডেস্ক:;করোনা টিকার বৈশ্বিক ব্যবস্থাপনা বিষয়ক জোট কোভ্যাক্সের অধীনে চলতি মাসেই অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার আরও ১৮ লাখ ডোজ টিকা পাচ্ছে বাংলাদেশ। এরমধ্যে ১০ লাখ কোভ্যাক্সের পূর্ব প্রতিশ্রুত, বাকি ৮ লাখ কান্ট্রি স্প্যাসিফিক অর্থাৎ বাংলাদেশকে উল্লেখ করে কোভ্যাক্সের মাধ্যমে পাঠানো বন্ধু রাষ্ট্র জার্মানির বিশেষ উপহার। ঢাকা ও জেনেভার দায়িত্বশীল সূত্র গতকাল মানবজমিনকে এ তথ্য জানিয়েছে। এ ছাড়া বুখারেস্টের একটি কূটনৈতিক সূত্র বলছে, ইউরোপের দেশ বুলগেরিয়া থেকে চলতি মাসের মাঝামাঝিতে ২ লাখ ৭০ হাজার ডোজ টিকা পেতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। উপহার হিসেবে বাংলাদেশের জনগণকে ওই টিকা দিচ্ছে বুলগেরিয়া সরকার। তবে এটি কোভ্যাক্সের মাধ্যমে, তাদের হিসাবের খাতায় উঠবে নাকি সরাসরি বাংলাদেশ এটি পাবে তা এখনো নিশ্চিত নয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত সপ্তাহে সংসদকে জানিয়েছেন ২৪ কোটি টিকার সংস্থান করতে সক্ষম হয়েছে বাংলাদেশ। ওই টিকা কোথা থেকে কীভাবে পাচ্ছে বাংলাদেশ তা খোলাসা হয়নি এখনো। গতকাল স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন এখন প্রতি সপ্তাহে চীন থেকে কেনা টিকার চালান দেশে আসবে এবং প্রতি চালানে ৫০ লাখ করে টিকা আসবে। চলতি মাসের চার সপ্তাহে চারটি টিকার চালান আসার শিডিউল পাওয়া গেছে। রাজধানীর মহাখালীর তিতুমীর সরকারি কলেজে বিডিএস প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, কোভ্যাক্সের মাধ্যমে ডিসেম্বরের মধ্যে ১০ কোটি টিকা ঢাকা পৌঁছানোর কথা রয়েছে। উল্লেখ্য, কোভ্যাক্সের সঙ্গে যোগাযোগের বিষয়টি দেখভাল করে জেনেভাস্থ বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন। জেনেভায় নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত ডা. মোস্তাফিজুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে গতকাল তিনি মানবজমিনকে বলেন, টিকার যে লাইন-আপ তৈরি হয়েছে অর্থাৎ প্রতিশ্রুত টিকা শিডিউল মতে ঢাকায় পৌঁছালে আগামী জুনের মধ্যে ৮০ ভাগ লোককে টিকার আওতায় আনা সম্ভব হবে। সংসদে প্রধানমন্ত্রী ২৪ কোটি টিকার সংস্থান হওয়ার যে তথ্য দিয়েছেন তা স্মরণ করে রাষ্ট্রদূত বলেন, কোভ্যাক্সের পূর্ব প্রতিশ্রুত সাড়ে ৬ কোটি টিকা আগামী জুনের মধ্যে পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশে পৌঁছে যাবে। কোভ্যাক্সের মাধ্যমে সাশ্রয়ী মূল্যে চীনের কাছ থেকে ১০ কোটি ৪ হাজার টিকা কিনছে বাংলাদেশ। তাছাড়া দ্বিপক্ষীয় চুক্তির আওতায় চীনের সিনোফার্মের কাছ থেকে কেনা হয়েছে সাড়ে ৭ কোটি টিকা। কম-বেশি হতে পারে, তবে সবমিলে আপাতত ওই ২৪ কোটি টিকার সংস্থান বলেই ধারণা দেয় জেনেভা মিশন।

বুলগেরিয়ার টিকা আসছে আগামী সপ্তাহে: এদিকে বুলগেরিয়ায় বাংলাদেশের আবাসিক কোনো রাষ্ট্রদূত বা দূতাবাস নেই। রোমানিয়ার বুখারেস্টে নবপ্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ দূতাবাস এবং সদ্য যোগদান করা বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত দাউদ আলী দক্ষিণ-পূর্ব ইউরোপ মহাদেশ তথা বলকান উপদ্বীপের পূর্বে ইউরোপ ও এশিয়ার সঙ্গমস্থলে থাকা বুলগেরিয়া প্রজাতন্ত্রে কনকারেন্ট অ্যাম্বাসেডরের দায়িত্বে রয়েছেন। কৃষ্ণ সাগর তীরবর্তী বন্ধু রাষ্ট্র বুলগেরিয়া আন্তর্জাতিক ফোরামে বরাবরই বাংলাদেশের সমর্থক। বুলগেরিয়ার সরকারি তথ্য সেবা সংস্থার বরাতে দেশটির প্রতিষ্ঠিত সংবাদ মাধ্যম সোফিয়া গ্লেবের প্রতিবেদন মতে, ন্যাটো এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার বুলগেরিয়া বিশ্বের বিভিন্ন দেশকে উপহার হিসেবে টিকা পাঠাচ্ছে। এরমধ্যে বাংলাদেশকে তারা দুই লাখ ৭০ হাজার অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা উপহার দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বাংলাদেশকে টিকা উপহার দেয়ার জন্য দেশটি শিগগিরই আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করবে বলে ওই রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে। রোমানিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত দাউদ আলীও গত বৃহস্পতিবার ঢাকায় এমন রিপোর্ট পাঠিয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে সেগুনবাগিচা।

ডায়ালসিলেট এম/

0Shares