কাজ দেওয়ার কথা বলে দুই সন্তানের জননীকে গণধর্ষণ

প্রকাশিত: ১২:৩২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২১

কাজ দেওয়ার কথা বলে দুই সন্তানের জননীকে গণধর্ষণ

ডায়ালসিলেট ডেস্ক :: চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় কাজ দেওয়ার কথা বলে দুই সন্তানের জননীকে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ ব্যাপারে বুধবার সন্ধ্যায় ধর্ষণের শিকার নারী থানায় মামলা করেছেন।

মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে আলমডাঙ্গা উপজেলার একটি দোতলা বিল্ডিংয়ে এই গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে। পুলিশ প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করেছে।

মামলার আসামিরা হলেন— উপজেলার শালিকা গ্রামের আবু ছদ্দিনের ছেলে মুলাম হোসেন (৫০), বন্দরভিটা গ্রামের মৃত সন্টুর ছেলে রিপন ওরফে লিপন (৩৫), শালিকা গ্রামের বারেক আলীর ছেলে হাসান (৪০), জসিম উদ্দিনের ছেলে নাজিরুল (২৫), মহেশপুর গ্রামের মৃত তপেল বিশ্বাসের ছেলে হাবু (৪২), নান্দবার গ্রামের মান্নানের ছেলে হামিদুল (৩৪) ও আসমানখালী গ্রামের মনসের আলীর ছেলে মিজানুর কলুসহ আরও একজন।

জানা গেছে, স্বামীর সঙ্গে ওই নারীর বনিবনা না হওয়ায় দুই সন্তানকে নিয়ে পিতার বাড়িতে বসবাস করেন। অভাব-অনটনের কারণে মানুষের বাড়িতে কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। তার পূর্ব পরিচিত আসমানখালী গ্রামের মিজানুর রহমান কলুকে একটি কাজ ঠিক করে দেওয়ার জন্য বলেন তিনি।

কলু ওই নারীকে আসতে বলেন। মঙ্গলবার দুপুরে ওই নারী এলে তাকে স্থানীয় দোতলা বিল্ডিংয়ের একটি কক্ষে নিয়ে আটজন মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ধর্ষণ শেষে তাকে বিকাল ৪টার দিকে ওই কক্ষে ফেলে রেখে চলে যায় ধর্ষণকারীরা। পরে ওই নারী বাড়িতে চলে যান।

বুধবার সন্ধ্যায় ওই নারী আলমডাঙ্গা থানায় সাতজনের নাম উল্লেখসহ আরও একজনকে অজ্ঞাত আসামি করে মামলা দেন। রাতেই পুলিশ পরিদর্শক অপারেশন শেখ মাহবুবুর রহমান অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামি মুলামকে গ্রেফতার করেন।

পুলিশ পরিদর্শক অপারেশন শেখ মাহবুবুর রহমান বলেন, বৃহস্পতিবার ওই নারীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেওয়া হবে।

ডায়ালসিলেট/এম/এ/

0Shares