‘নৌকার বিরোধিতা করলে কপালে শনি আছে’

প্রকাশিত: ১১:১৩ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২১

‘নৌকার বিরোধিতা করলে কপালে শনি আছে’

ডায়ালসিলেট ডেস্ক :: আওয়ামী লীগের উপপ্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন বলেছেন, তলাবিহীন ঝুড়ির উপাধি পাওয়া বাংলাদেশ আজ উন্নতশীল দেশের কাতারে। বিদেশি অর্থায়ন ছাড়াই স্বপ্নের পদ্মাসেতু নির্মাণ, কক্সবাজারে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, দোহাজারী থেকে ঘুমধুম পর্যন্ত রেললাইন স্থাপন ছাড়াও সারাদেশে দৃশ্যমান উন্নয়ন-অগ্রগতির বদৌলতে আজ এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

আর এসব অর্জনের পেছনে শুধুই অবদান এক জনের। তিনি হচ্ছেন জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে চকরিয়া বিজয় মঞ্চ চত্বরে আওয়ামী লীগ আয়োজিত কর্মী সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে আমিনুল ইসলাম আমিন এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, দেশবাসীকে ভালোবাসেন বলেই শেখ হাসিনা দেশের কল্যাণে কাজ করছেন। বাংলাদেশকে বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড় করাতে পরিকল্পিত কর্মকাণ্ডে এগিয়ে যাচ্ছেন। তার এসব অর্জন অবশ্যই জনগণের কাছে তুলে ধরতে হবে।

আমিনুল ইসলাম বলেন, সরকারের উন্নয়ন সাফল্যের সূত্রধরে আগামী ২০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিতব্য চকরিয়া পৌরসভা নিবার্চনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আলমগীর চৌধুরীকে বিজয়ী করার জন্য নেতাকর্মীদের কাজ করতে হবে।

তিনি বলেন, চকরিয়া পৌর নিবার্চনে মেয়র প্রার্থী আলমগীর চৌধুরী সরাসারি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রার্থী। দল যাছাই-বাছাই করে একজন পরিচ্ছন্ন মানুষ হিসেবে তাকে মনোনয়ন দিয়েছে। আর নৌকা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতীক, স্বাধীনতার প্রতীক। কাজেই আওয়ামী লীগের রাজনীতি করলে নৌকার জন্য কাজ করতে হবে। শেখ হাসিনার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে হবে।

তিনি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের বার্তা তুলে ধরে বলেন, আসন্ন পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ নিবার্চনে যারা নৌকার বিরোধীতা করছেন, বা করবেন, প্রমাণিত হলে তাদের কপালে শনির দশা আছে। অতীতে বিদ্রোহীদের ক্ষমা করা হলেও ভবিষ্যতে দল কাউকে ছাড় দেবেনা। তাতে হারাতে হবে সব ধরনের পদ-পদবি। তাই আসুন সবাই নৌকার পক্ষে কাজ করি।

চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সম্পাদক জামাল উদ্দিন জয়নালের সঞ্চালনায় কর্মী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন- আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তাফা। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন- কক্সবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সালাহউদ্দিন আহমদ সিআইপি, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক মেয়র মুজিবুর রহমান, কেন্দ্রীয় যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক বদিউল আলম বদি, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল করিম, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য জিয়াউদ্দিন চৌধুরী জিয়া, আমিনুর রশিদ দুলাল, চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ ফজলুল করিম সাঈদী ও কক্সবাজার জেলা যুবলীগের সভাপতি সোহেল আহমদ বাহাদুর।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- চকরিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মকছুদুল হক ছুট্টু, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ছরওয়ার আলম, আওয়ামী লীগ প্রার্থীর প্রধান নিবার্চনী এজেন্ট অধ্যক্ষ একেএম গিয়াস উদ্দিন, আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আলমগীর চৌধুরী, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আজিজুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট রনজিত দাশ, শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক খালেদ মিতুন, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক সদস্য খোরশেদ আলম কুতুবী, স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট ফয়সাল ছিদ্দিকী, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতিক উদ্দিন চৌধুরী, কক্সবাজার সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু তালেব, মাতামুহুরী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহনেওয়াজ তালুকদার, আওয়ামী লীগ নেতা পরিমল বড়ুয়া, চকরিয়া পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যাপক মোসলেহ উদ্দিন মানিক, আমান উদ্দিন আমান, চকরিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি শহীদুল ইসলাম শহীদ, সাধারণ সম্পাদক কাউছার উদ্দিন কছির প্রমুখ।

কর্মী সভায় আমিনুল ইসলাম আমিনের অনুরোধে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী সাবেক ছাত্রনেতা অ্যাডভোকেট ফয়সাল ছিদ্দিকী (কম্পিউটার) আওয়ামী লীগ প্রার্থী আলমগীর চৌধুরীকে (নৌকা) সমর্থন দিয়ে নিবার্চন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন।

ডায়ালসিলেট/এম/এ/

0Shares