গোলাপগঞ্জে গৃহবধূর মুখে বিষ ঢেলে হত্যার চেষ্টা, দুজন কারাগারে

প্রকাশিত: ৪:৩৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১

গোলাপগঞ্জে গৃহবধূর মুখে বিষ ঢেলে হত্যার চেষ্টা, দুজন কারাগারে

ডায়ালসিলেট ডেস্ক;:সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলায় যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূর মুখে বিষ ঢেলে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় পুলিশ গৃহবধূর স্বামী ছয়ফুল ইসলাম ছফু (৪৫) ও শাশুড়ি নেওয়া বেগম (৫৮) কে গ্রেফতার করেছে। তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

উপজেলার দক্ষিণ ঘোষগাঁও গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

এদিকে, সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গৃহবধূর অবস্থা এখনো আশংকাজন বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে।

থানায় অভিযোগ থেকে জানা যায়, উপজেলার দক্ষিণ ঘোষগাঁও গ্রামের মধু মিয়ার ছেলে ছয়ফুল ইসলাম ছফুর সাথে উপজেলার খর্দ্দাপাড়া গ্রামের সাজ্জাদ আলীর মেয়ের বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে নির্যাতন করতেন স্বামীসহ শশুর বাড়ির লোকজন। গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে স্বামী ছয়ফুল ইসলাম ছফু স্ত্রীকে যৌতুকের জন্য মারধর করেন। মারধরের প্রতিবাদ করায় স্বামী ও শাশুড়িসহ পরিবারের লোকজন গৃহবধূকে ধরে মুখে বিষ ঢেলে দেয়। পরে অসুস্থ বলে গৃহবধুর ভাইকে খবর দেন ছয়ফুল। খবর পেয়ে ভাই সেখানে উপস্থিত হয়ে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে প্রেরণ করা হয়। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।

এঘটনায় স্বামী, শাশুড়ী ও দেবর এই তিন জনকে আসামি করে গৃহবধুর ভাই আব্দুস সামাদ গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন, নং-১৯ /১৭.০৯.২০২১। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে মামলার প্রধান আসামী গৃহবধুর স্বামী ছয়ফুল ইসলাম ছফু ও শাশুড়ি নেওয়া বেগমকে গ্রেফতার করেছে । মামাল অপর আসামী দেবর সমছু মিয়া (৩২) পলাতক রয়েছে।

এদিকে গৃহবধূর ভাই আব্দুস সামাদ বলেন, আমার বোনের অবস্থা খুবই গুরুতর। সে বর্তমানে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। তার অবস্থা ভালো না।

এব্যাপারে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি) হারুনুর রশীদ চৌধুরী জানান,
এঘটানায় মামলা হওয়ার পর ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত আসামীদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

ডায়ালসিলেট এম/

0Shares