টানা দ্বিতীয় হার ভারতের

প্রকাশিত: ৯:২৫ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১, ২০২১

টানা দ্বিতীয় হার ভারতের

স্পোর্টস ডেস্ক::বলে-কয়েই ভারতীয়দের বল হাতে নাকাল করলেন ট্রেন্ট বোল্ট। আর মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ভারতকে হারিয়ে সেমিফাইনালের সম্ভাবনা উজ্জ্বল করলো নিউজিল্যান্ড। টি-টোয়েন্টি বিশ^কাপে গতকাল ভারতকে সহজেই ৮ উইকেটে হারায় কিউইরা। এতে সম্ভাবনা ফিকে হলো আসরের আয়োজক ভারতের। ‘যদি-তবে’র ওপর ঝুলে পড়লো ভারতের ভাগ্য। এর আগে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ভারতীয় ব্যাটিং লাইন ধসিয়ে দিয়েছিলেন শাহিন শাহ আফ্রিদি। পাকিস্তানের বাঁহাতি পেসার নিজের ৪ ওভারে ৩১ রান খরচায় নিয়েছিলেন তিন উইকেট। নতুন বলে শাহীন শাহর সুইং ও মুভমেন্টের সঙ্গে একদমই মানিয়ে নিতে পারেননি ভারতীয় ব্যাটাররা।
কোহলিদের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে ট্রেন্ট বোল্ট বলেন, ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে শাহীন শাহর মতোই কিছু করে দেখাতে চান তিনি। আর মাঠের খেলায় তেমন কিছুই দেখালেন বোল্ট। গতকাল নিজের চার ওভারের স্পেলে মাত্র ২০ রানে তিন উইকেট নেন কিউই পেসার। এতে মাত্র ১১০ রানে থেমে যায় টসে হেরে আগে ব্যাটিংয়ে যাওয়া ভারতের ইনিংস।
দুবাইয়ে সুপার টুয়েলভ পর্বের ‘গ্রুপ টু’-এর ম্যাচে মামুলি ১১০/৭ সংগ্রহ নিয়ে ইনিংস শেষ করে ভারত। জবাবে ৩৩ বল বাকি রেখে টার্গেট পার করে নিউজিল্যান্ড। এই গ্রুপ থেকে ভারতের জন্য সেমিফাইনাল আপাতত ‘মিশন ইমপসিবল’। পরের তিন ম্যাচে অপেক্ষাকৃত কম শক্তির দল আফগানিস্তান, নামিবিয়া ও স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে খেলবে নিউজিল্যান্ড। আর পাকিস্তানের খেলা বাকি আইসিসির সহযোগী দুই দেশ স্কটল্যান্ড ও নামিবিয়ার বিপক্ষে। ম্যাচগুলোতে নিউজিল্যান্ড-পাকিস্তান জয় পেলে তল্পিতল্পা গুটাতে হবে এবারের বিশ^কাপের আয়োজক ভারতকে। আসরে টানা তিন জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার শীর্ষে রয়েছে পাকিস্তান। ভারত, নিউজিল্যান্ডের পর আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয় দেখেছে বাবর আজমের দল। গ্রুপে দুই ম্যাচে ২ পয়েন্ট সংগ্রহ নিউজিল্যান্ডের। অন্যদিকে নিজেদের দুই ম্যাচেই হার নিয়ে পয়েন্টের খাতা শূন্য ভারতের।
গতকাল মামুলি টার্গেটে ওপেনিংয়ে ব্যাট হাতে স্কোর বোর্ডে ২৪ রান জমা করেন মার্টিন গাপটিল ও ডেরিল মিচেল জুটি। ১৭ বলে ২০ রান করে আউট হন গাপটিল। ভারতীয় পেসার জসপ্রিত বুমরার বলে ক্যাচ নেন শার্দুল ঠাকুর। তবে দ্বিতীয় উইকেটে ৭২ রানের জুটি গড়ে দলের সহজ জয় নিশ্চিত করেন মিচেল ও অধিনায়ক কেইন উইলিয়ামসন। ৩৫ বলে ৪৯ রানের ইনিংস খেলেন ডেরিল মিচেল। কিউই ওপেনার হাঁকান চারটি বাউন্ডারি ও তিনটি ছক্কা। বুমরার বলে বড় শট খেলতে গিয়ে সীমানা দড়ির কাছে কেএল রাহুলের হাতে ক্যাচ দেন তিনি। ভারতীয়দের উল্লাস বলতে ওই টুকুই। ততক্ষণে ম্যাচ কিউইদের মুঠোয়। দলের জয় নিশ্চত করে উইলিয়ামসন অপরাজিত থাকেন ৩১ বলে ৩৩ রানে।
দুবাই ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে টসে জিতে কোহলির দলকে ব্যাটিংয়ে পাঠান কিউই অধিনায়ক কেইন উইলিয়ামসন। বিশ্বকাপের অভিষেক ম্যাচে আলো ছড়াতে পারলেন না ইশান কিশান। ইনিংস উদ্বোধন করতে গিয়ে ৮ বলে ৪ রান করে সাজঘরে ফেরেন তিনি। লোকেশ রাহুল বড় ইনিংস খেলার ইঙ্গিত দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ১৬ বলে ১৮ রান করে। এরপর রোহিত শর্মা (১৪ বলে ১৪ রান) ও বিরাট কোহলিকে (১৭ বলে ৯ রান) সাজঘরে ফিরিয়ে নিউজিল্যান্ডকে চালকের আসনে বসান লেগস্পিনার ইশ সোধি। এরপর ক্রিজে থিতু হয়ে বড় ইনিংস খেলতে ব্যর্থ হন ঋষভ পন্ত। ১৯ বলে মাত্র ১২ রান করে সাজঘরে ফেরেন ভারতের উইকেটরক্ষক-ব্যাটার। পরে দলীয় ৯৪ রানে পরপর দুই উইকেট খোয়ালে বড় সংগ্রহের আশা শেষ হয়ে যায় ভারতের। ২৪ বলে ২৩ রান করে আউট হন হার্দিক পান্ডিয়া। আর তিন বল মোকাবিলায় রানের খাতা না খুলেই সাজঘরের পথ ধরেন শার্দুল ঠাকুর। তবে শেষ পর্যন্ত রবীন্দ্র জাদেজার ১৯ বলে হার না মানা ২৬ রানের ইনিংসে দলীয় ১০০’র কোঠা পার করে ভারত। নিউজিল্যান্ডের বল হাতে চার ওভারের স্পেলে মাত্র ২০ রানে তিন উইকেট নেন কিউই বাঁহাতি পেসার ট্রেন্ট বোল্ট। ৪ ওভারে ১৭ রানে দুই উইকেট নেন ইশ সোধি। অপর পেসার টিম সাউদি ও আডাম মিলনে নেন একটি করে উইকেট।

0Shares