কৃষিতে যান্ত্রিক পদ্ধতিতে চাষাবাদ করে উৎপাদন বাড়াতে হবে : জেলা প্রশাসক

প্রকাশিত: ১১:৪৮ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৬, ২০২৩

কৃষিতে যান্ত্রিক পদ্ধতিতে চাষাবাদ করে উৎপাদন বাড়াতে হবে : জেলা প্রশাসক

ডায়ালসিলেট ডেস্ক :: জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান বলেছেন, ‘এক ইঞ্চি জমিও অনাবাদি রাখা যাবে না’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনাকে বাস্তবায়ন করতে সামাজিক আন্দোলন শুরু করা হয়েছিল কুলাউড়া থেকে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ প্রথমবারের মতো কুলাউড়া সদর ইউনিয়নের গুতগুতি গ্রামের অনাবাদি ১৫০ বিঘা জমি বোরো ধানের সমলয় চাষাবাদ এর আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী কৃষকদের বিভিন্ন প্রণোদনা দিয়ে উৎসাহিত করে যাচ্ছেন। তাই অনাবাদি পতিত জমি আবাদের আওতায় নিয়ে যান্ত্রিক পদ্ধতিতে চারা উৎপাদন, চারা রোপণ, ধান কর্তন করে কৃষিতে শতভাগ সাফল্য অর্জন করতে হবে। কৃষকদের দাবির প্রেক্ষিতে ফানাই নদীতে সেচ সুবিধার্থে একটি স্লুইসগেট নির্মাণের আশ্বাস প্রদান করেন তিনি।

সোমবার ৬ ফেব্রুয়ারি দুপুরে কুলাউড়া উপজেলা প্রশাসন ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে উপজেলার কুলাউড়া ইউনিয়নের গুতগুতি এলাকায় আয়োজিত ‘রবি মৌসুমে বোরো ধানের সমলয় চাষাবাদের’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কৃষক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মাহমুদুর রহমান খোন্দকারের সভাপতিত্বে ও কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মো. বিল্লাল হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আব্দুল মোমিন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক সামসুদ্দিন আহমদ, সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোছাদ্দিক আহমদ নোমান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সম্পাদক আব্দুল আজিজ, কৃষক রজব আলী।

উপস্থিত ছিলেন জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত উপপরিচালক নিলুফার ইয়াসমিন, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মিঠুন সরকার, কুলাউড়া প্রেসক্লাব সভাপতি এম শাকিল রশীদ চৌধুরীসহ বিভাগীয় কর্মকর্তা ও গণমাধ্যমকর্মীরা। পরে জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান কৃষি জমিতে যান্ত্রিক পদ্ধতিতে চারা রোপণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

0Shares

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ