উপহার পাওয়া গাড়িটি এম্বুলেন্স হিসেবে ব্যবহারের ঘোষণা হিরো আলমের

প্রকাশিত: ৯:২৪ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২৩

উপহার পাওয়া গাড়িটি এম্বুলেন্স হিসেবে ব্যবহারের ঘোষণা হিরো আলমের

ডায়ালসিলেট ডেস্ক;:হবিগঞ্জের এক শিক্ষকের কাছ থেকে উপহার পাওয়া মাইক্রোবাসটি এম্বুলেন্স হিসেবে ব্যবহারের ঘোষণা দিয়েছেন বগুড়া-৪ আসনের উপনির্বাচনে পরাজিত স্বতন্ত্র প্রার্থী আশরাফুল হোসেন ওরফে হিরো আলম। গতকাল হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার নরপতি গ্রামের শিক্ষক এম মখলিছুর রহমানের কাছ থেকে গাড়িটি গ্রহণের পর তিনি এ ঘোষণা দেন। গতকাল বেলা তিনটার দিকে হিরো আলম হবিগঞ্জে এসে পৌঁছেন। উপহার গ্রহণের পর তিনি ঘোষণা দিয়েছেন, গাড়িটি তিনি ব্যক্তিগতভাবে ব্যবহার করবেন না; বরং এম্বুলেন্স হিসেবে সাধারণ মানুষ ব্যবহার করবেন এটি। হিরো আলমকে গাড়ি উপহার দেয়া এম মখলিছুর রহমান হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার নরপতি গ্রামের হাজি আবদুল জব্বার জিএল একাডেমি অ্যান্ড হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক। উপনির্বাচনের একদিন আগে ৩১শে জানুয়ারি ফেসবুক লাইভে এসে তিনি হিরো আলমকে নিজের ব্যবহৃত নোহা মাইক্রোবাসটি উপহার দেয়ার ঘোষণা দেন। হিরো আলম উপহারের গাড়ি নিতে হবিগঞ্জে আসছেন, এই খবরে গতকাল সকাল থেকে চুনারুঘাটের নরপতি গ্রামে মানুষের ঢল নামে। চুনারুঘাট উপজেলা ছাড়াও হবিগঞ্জ সদর, বাহুবল, মাধবপুর উপজেলা থেকেও উৎসুক মানুষ হিরো আলমকে একনজর দেখতে আসেন। হিরো আলমকে উপহার হস্তান্তর উপলক্ষে শিক্ষক মখলিছুর রহমানের বাড়ির সামনে বানানো হয় একটি মঞ্চ। বেলা তিনটায় হিরো আলম নরপতি গ্রাহিরো আলম বলেন, মঞ্চে অতিরিক্ত লোকজন থাকলে কী অবস্থা দাঁড়ায়, তা আপনারা কিছুদিন আগে দেখেছেন। কাজেই আপনাদের কাছে অনুরোধ, সবার মঞ্চে থাকার প্রয়োজন নেই। মখলিছুর রহমানের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে হিরো আলম বলেন, সিলেটের মানুষ কথা দিয়ে কথা রেখেছেন। অনেকের ধন আছে, কিন্তু বিতরণ করার মতো তাদের মন নেই। আবার অনেক মানুষ আছেন, যারা মানুষের কল্যাণে সব বিলিয়ে দেন। তেমনি হবিগঞ্জের মখলিছুর রহমান একজন। গাড়িটি এম্বুলেন্স হিসেবে ব্যবহারের ঘোষণা দিয়ে হিরো আলম বলেন, আমি নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত থাকায় এ উপহারের ঘোষণায় মন দিতে পারেনি। পরে মখলিছুর রহমান আমার সঙ্গে যোগাযোগ করলেও আমি তা বিশ্বাস করতে পারিনি, তিনি সত্যিই এ গাড়ি উপহার দেবেন। ফেসবুকে দেখেছি, অনেকেই তার এই ঘোষণায় মখলিছুরকে গালিগালাজ করছেন। যে কারণে আমি গাড়িটি নিতে চাইনি। পরে দেখলাম, আমার দেশ-বিদেশের অনেক বন্ধু ফোন করে অনুরোধ করেন, কেউ কিছু উপহার দিলে তা গ্রহণ করতে হয়। তাদের অনুরোধে হবিগঞ্জে আসা। মখলিছুর রহমান যে গাড়ি আমাকে উপহার দিয়েছেন, তা আমি ব্যক্তিগতভাবে ব্যবহার করবো না। ভালোবাসার দান ভালোবাসার মধ্যে থাকবে, তা এম্বুলেন্স হিসেবে ব্যবহৃত হবে। কারণ, এ দেশের অনেক মানুষ আছেন, চিকিৎসা গ্রহণ করতে গিয়ে আর্থিক সংকটে এম্বুলেন্স ব্যবহার করতে পারেন না। হিরো আলমকে গাড়ি উপহার দিয়ে মখলিছুর রহমানও বেশ খুশি। তিনি বলেন, হিরো আলমকে দেয়া প্রতিশ্রুতি আমি রক্ষা করেছি। তিনি হবিগঞ্জে আসায় হবিগঞ্জের মানুষ তাকে ভালোবাসা দিয়ে বরণ করেন। হিরো আলম দেশের হিরো। তিনি হবিগঞ্জে আসার আগে আমি তাকে খাওয়ার মেন্যু জানতে চাইলে তিনি (হিরো আলম) আমাকে জানান, দেশি মোরগের মাংস তার পছন্দ। তার পছন্দের খাবার দিয়েই আমার বাড়িতে আপ্যায়ন করেছি। হিরো আলম বগুড়া-৬ আসনে জামানত হারালেও বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলেছিলেন। ১৪ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক জাসদের এ কে এম রেজাউল করিমের কাছে ৮৩৪ ভোটে হেরে যান তিনি। এরপর হিরো আলম অভিযোগ করেন, ভোটের ফলাফলে কারচুপি করে তাকে হারিয়ে দেয়া হয়েছে। উপনির্বাচনের একদিন আগে ৩১শে জানুয়ারি ফেসবুক লাইভে এসে শিক্ষক মখলিছুর রহমান ঘোষণা দেন, তিনি তার নিজের ব্যবহৃত নোহা মাইক্রোবাসটি হিরো আলমকে উপহার দেবেন।

ডায়ালসিলেট এম/

0Shares

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ