বড়লেখায় অসাধু চক্র পরিকল্পিকভাবে ধ্বংস করছে প্রাকৃতিক পরিবেশ

প্রকাশিত: ১২:৩৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২৩

বড়লেখায় অসাধু চক্র পরিকল্পিকভাবে ধ্বংস করছে প্রাকৃতিক পরিবেশ

ডায়াল সিলেট ডেস্ক    বড়লেখা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় প্রভাবশালীরা মাটি বিক্রি করতে পরিকল্পিতভাবে প্রাকৃতিক টিলা ধ্বংস করছে। অসাধুরা প্রথমে টিলার কিছু অংশের মাটি পাচার করে বসতঘর নির্মাণ করে। অবৈধভাবে টিলা কাটায় একসময় ওই স্থানে ভূমিধস ঘটলে বসতঘর ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠে।
পরবর্তীতে টিলাখেকোরা বসতঘর রক্ষাসহ নানা অজুহাতে পুরো টিলাই সাবাড় করে নেয়। এমনি পন্থায় প্রাকৃতিক টিলা সাবাড় করছেন উপজেলার দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের মোহাম্মদনগর গ্রামে স্থানীয় প্রাইমারি স্কুলের পূর্ব-পার্শে শামীম আহমদ নামক এক ব্যক্তি। এতে মারাত্মকভাবে বিনষ্ট হচ্ছে এলাকার প্রাকৃতিক পরিবেশ।
উপজেলার মোহাম্মদনগর এলাকায় সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, গ্রামের মৃত তছির আলীর ছেলে শামীম আহমদ দাঁড়িয়ে থেকে বাদল মিয়ার মালিকানাধীন ভাড়া করা এসকেভেটর ভাড়া দিয়ে বসতঘর সংলগ্ন বিশাল প্রাকৃতিক টিলা কর্তন করাচ্ছেন। চার থেকে পাঁচটি ট্রাক্টর টিলার মাটি পরিবহণ করে গ্রামতলা এলাকায় হেলাল লন্ডনি নামকব্যক্তির ভিটা ভরাট করছে।
শামীম আহমদ জানান, বসতঘরের উপর ধসে পড়ায় টিলা কাটার আবেদন করলে এসিল্যান্ড তাকে অনুমতি দিয়েছেন। তবে অনুমতি সংক্রান্ত কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেননি।
সহকারি কমিশনার (ভূমি) জাহাঙ্গীর হোসাইন জানান, পরিবেশ সংরক্ষণ আইন ১৯৯৫ এর ৬(খ) ধারা মোতাবেক সরকারি-বেসরকারি সব ধরণের প্রাকৃতিক টিলা কর্তন দন্ডনীয় অপরাধ। তিনি টিলা কাটার কোন অনুমতি দিতে পারেন না। অবৈধভাবে টিলা কর্তনের বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম ঠিকানা ও টিলার তফসিল উল্লেখপূর্বক তিনি পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক বরাবর চিঠি পাঠিয়েছেন।
পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচলাক মাইদুল ইসলাম মঙ্গলবার বিকেলে জানান, বড়লেখা সহকারি কমিশনারের চিঠি পাওয়ার পর অভিযুক্ত ব্যক্তিকে নোটিশ করা হয়েছে। পরিবেশ অধিদপ্তরের বিভাগীয় কার্যালয়ে এ বিষয়ে অনুষ্টিতব্য শুনানিতে অংশ নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

0Shares

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ