বর্ণাঢ্য র‌্যালীর মাধ্যমে কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট সিলেট উদ্যোগে জাতীয় ভ্যাট দিবস ও ভ্যাট সপ্তাহ পালিত

প্রকাশিত: ৪:২৪ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১০, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক ::  ’ভ্যাট দিচ্ছে জনগন দেশের হচ্ছে উন্নয়ন’ ’অনলাইনে সুবিধা নিন,ঘরে বসে ভ্যাট দিন’ এই প্রতিবাদ্যকে সামনে রেখে টানা ৪র্থ বারের মত সিলেটে আন্তর্জাতিক ভ্যাট দিবস ও ভ্যাট সপ্তাহ পালিত হচ্ছে। এ বছরের জাতীয় ভ্যাট দিবস ও সপ্তাহকে গুরুত্ব দিয়েছে নতুন মাত্রা। এখন থেকে ঘরে বসেই ভ্যাট প্রদান করতে পারবেন ভ্যাট দাতারা।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায় বর্ণাঢ্য উৎসবের মাধ্যমে কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট,সিলেট এর উদ্যেগে নগরীর মেন্দিবাগস্থ কাস্টমস’র প্রধান কার্যালয়ে প্রথমে ফিতা কেটে এবং পরে পায়রা ও বেলুন উত্তোলনের মাধ্যমে অতিথিবৃন্দরা এর আনুষ্টানিক শুভ উদ্বোধন করেন।

পরে বর্ণাঢ্য র‌্যালীতে যোগ দেন অতিথিবৃন্দরা। এসময় র‌্যালীটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে মেন্দিবাগস্থ প্রধান কার্যালয়ে এসে সমাপ্ত হয়।
উক্ত উদ্বোধনী পূর্বে অনুষ্ঠানে কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, সিলেট, কমিশনার গোলাম মো.মুনীর এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট ৩-আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ-উস-সামাদ চৌধুরী।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে জাতীয় ভ্যাট দিবস উপলক্ষে নগরীর একটি অভিজাত হোটেলে আলোচন সভার আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানের ২য় অধিবেশনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, সিলেট যুগ্ম কমিশনার মিনহাজ উদ্দিন।

পরে অনুষ্ঠানে জাতীয় ভ্যাট দিবস ও সপ্তাহ ২০১৯ অনুষ্ঠানের ”কি নোট” উপস্থাপন করেন কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, সিলেট অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ সফিউর রহমান।

কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট,সিলেট কমিশনার গোলাম মো. মুনীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট ৩-আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ-উস-সামাদ চৌধুরী।

দেশ গিয়ে চলছে, দেশে মাথাপিছু আয় বেড়েছে। কার সাহায্য ছাড়া নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলছে। ৩২ শত মেগাওয়াট থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন এখন ২ হাজার মেগাওয়াট উত্তীর্ণ হয়েছে। আর সকল উন্নয়নের ম‚লে জনগণের দেয়া ভ্যাটের টাকায়। তাই দেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে নিয়মিত ভ্যাট প্রদান করা নাগরিক হিসেবে আমাদের প্রত্যেকের উচিৎ। কথাগুলো বলেছেন সিলেট ৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদু -উস-সামাদ চৌধুরী ।  মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) আন্তর্জাতিক ভ্যাট দিবস ও ভ্যাট সপ্তাহ কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট, সিলেট এর উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় নগরীর একটি অভিজাত হোটেলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাহমুদুস সামাদ চৌধুরী কয়েস বলেন, বাংলাদেশ মায়ানমারের সাথে সাগর সীমায় বর্তমান সময়ে ২ শত নটিক্যাল মাইল জায়গা পেয়েছে, ভারতের সাথে ২ শত ৫০ নটিক্যাল মাইল জায়গা পেয়েছে। ম‚লত জনগণের দেয়া রাজস্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের সাথে দেশ এগিয়ে চলছে।
তিনি অনলাইনে ভ্যাট প্রদানের সুবিধার কথা উল্লেখ করে বলেন, এখন যে কোন মানুষ চাইলেই জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে টিআইএন নাম্বার তৈরি করে অনলাইনে ভ্যাট প্রদান করতে পারে। এতে ভ্যাট প্রদান আগের তুলনায় অনেক সহজ হয়েছে।

সিলেটে ভ্যাট আদায় লক্ষ্যমাত্রা জানিয়ে মাহমুদুস সামাদ চৌধুরী বলেন, এবার সিলেট থেকে ভ্যাট আদায়ে আমাদের লক্ষ্যমাত্রা ১৭ শত কোটি টাকা। তবে চেষ্টা করবো লক্ষ্যমাত্রা আরো বাড়ানোর। সিলেট চেম্বার অব কমার্সসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ব্যবসায়ীদের নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ভ্যাট দেওয়ার জন্য ইতোমধ্যে যে সমস্ত প্রতিষ্ঠানে মেশিন লাগানো হয়েছে। ভ্যাট আদায়ের জন্য সেগুলো সরাসরি এনবিআরের সাথে যুক্ত থাকবে। এজন্য সিলেটের ব্যাপারে আমি আগ্রহী। কারণ সিলেটের মানুষ ট্যাক্স দিতে আগ্রহী। ইতোমধ্যে ইনকাম ট্যাক্সসহ সকল বিষয়ে অনুষ্ঠান করা হয়েছে। আমি খুবই আশাবাদী ভ্যাটের নতুন কার্যক্রম সফল হবে।

কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট,সিলেট কমিশনার গোলাম মো. মুনীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে বক্তব্য রাখেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য (ম‚সক নিরীক্ষা ও গোয়েন্দা) মো.মাসুদ সাদিক, সিলেট অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) তাহমিদুল ইসলাম,অতিরিক্ত ডিআইজি সিলেট রেঞ্জ জয়দেব কুমার ভদ্র, সিলেট মেট্রোপলিটন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার পরিতোষ ঘোষ, কর-অঞ্চল সিলেট কমিশনার রণজিৎ কুমার সাহা, এফবিসিসিআই পরিচালক খন্দকার সিপার আহমদ, সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি সভাপতি আবু তাহের মো. শোয়েব, কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট সিলেট’র অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ সফিউর রহমান, যুগ্ম কমিশনার মো.মিনহাজ উদ্দিন, উপ-কমিশনার মুহম্মদ ছৈয়দুল আলম, সহকারী কমিশনার, হবিগঞ্জ প্রভাত কুমার সিনহা ও সিলেট বিভাগ থেকে আগত ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ এবং কাস্টমস এক্সাইজ এন্ড ভ্যাট কমিশনারেট সিলেট’র রাজস্ব কর্মকর্তাবৃন্দসহ প্রমুখ।

0Shares