তাহিরপুরে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন : আটক চাচাতো ভাই

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ৫:৩১ অপরাহ্ণ, মার্চ ৪, ২০২০

ডায়ালসিলেট ডেস্ক:সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের পল্লীতে চাচাতো ভাইকে খুনের ঘটনায় আব্দুল কাদির (২৬) কে আটক করেছে তাহিরপুর থানা পুলিশ। সে উপজেলার বড়দল (উ.) ইউনিয়নের ঘাগটিয়ার টেকেরগাও গ্রামের মৃত নবীকুলের ছেলে। ঘটনার ১২ ঘন্টার মধ্যে তাহিরপুর থানার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আতিকুর রহমানের নেতেৃত্বে পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে মঙ্গলবার মধ্যরাতে তাহিরপুর উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী বারেকটিলা থেকে তাকে আটক করে।

উল্লেখ্য, নিহত শহিদ নুরের পিতা নাসির উদ্দিনের সাথে তার আপন চাচাত বড় ভাই মৃত নবিকুলের ছেলে গোলাম কাদিরের সাথে জায়গা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে র্দীঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার সকালে নবিকুলের ছেলে গোলাম কাদির তার চাচা নাসির উদ্দিনকে ফোন করে গোলাম কাদিরের বাড়িতে আসতে বলে। পরে চাচা নাসির উদ্দিন ভাতিজার ফোন পেয়ে গোলাম কাদিরের বাড়িতে যাওয়া মাত্রই পূর্ব পরিকল্পিতভাবে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে গোলাম কাদির ও তার ৬/৭ জন সহযোগী মিলে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে। এক পর্যায়ে ভাতিজা গোলাম কাদির তার হাতে থাকা লোহার শাবল দিয়ে নাসির উদ্দিনের পেটে আঘাত করলে সে গুরুতর আহত হয়। এ খবর পেয়ে নাসির উদ্দিনের ছেলে শহিদ নুর ঘুম থেকে উঠে ঘটনাস্থলে গেলে তাকেও ভোজাং দিয়ে পেটে আঘাত করে গোলাম কাদির।

পরে স্থানীয় এলাকাবাসী ও তার পরিবারের লোকজনের সহযোগিতায় নাসির উদ্দিন ও তার ছেলে শহিদ নুরকে উদ্ধার করে গুরুতর আহত অবস্থায় তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার সময় পথিমধ্যেই শহিদ নুর মারা যান। এবং গুরুতর আহত নাসির উদ্দিকে উন্নত চিকিৎসার সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়।

তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আতিকুর রহমান কাদিরকে গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটক কাদিরকে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে এবং এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

0Shares