জকিগঞ্জে জমে উঠেছে প্রচার, সতর্ক ভোটাররা

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ১০:২৩ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৭, ২০২১

ডায়ালসিলেট ডেস্ক::

সিলেটের জকিগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনে জমে উঠেছে প্রার্থীদের গণসংযোগ আর প্রচার-প্রচারণা। প্রতিশ্রুতির ফুলঝুরি নিয়ে প্রার্থীরা ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন পরিচ্ছন্ন আধুনিক পৌরসভা গড়ার। প্রত্যেকেই নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী। আর প্রার্থীদের প্রতিশ্রুতির ফুলঝুরির বিপরীতে ভোটাররা বলছেন, জনদরদী, সৎ ও যোগ্য প্রার্থীকেই মেয়র পদে বেছে নেবেন তারা। প্রতীকে নয়, প্রার্থীর ওপর আস্থা রাখতে চান সাধারণ মানুষ।

জকিগঞ্জ শহরের রাস্তাঘাট, অলিগলি আর পাড়া-মহল্লা এখন স্লোগানমুখর। প্রচার-প্রচারণায় জমে উঠেছে ভোটযুদ্ধ। ব্যানার-ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে পুরো শহরসহ ওয়ার্ডগুলো। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে বসতবাড়িতেও এখন আলোচনার বিষয় শুধু নির্বাচন। প্রার্থীরা ভোট চেয়ে চষে বেড়াচ্ছেন নির্বাচনী এলাকা।

নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থীসহ মোট ৮ জন প্রার্থী অংশ নিয়েছেন। আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা খলিল উদ্দিন ব্যাপক গণসংযোগ করে বেড়াচ্ছেন। তিনি জানান, আবারও মেয়র নির্বাচিত হলে অসমাপ্ত কাজকে সমাপ্ত করবেন।

সমানভাবে প্রতিটি এলাকায় গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী সাবেক মেয়র ইকবাল আহমদ তাপাদার ও জাতীয় পার্টি মনোনীত মেয়র প্রার্থী সাবেক মেয়র আব্দুল মালেক ফারুক। দু’জনই নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদ জানিয়ে জানান, নির্বাচিত হলে তাদের অতীতের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে পৌরসভার উন্নয়ন করবেন। অসমাপ্ত কাজগুলো সম্পন্ন করতে চান তারা।

দলীয় মেয়র প্রার্থীদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে সমানতালে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ফারুক আহমদ, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল আহাদ, বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী এডভোকেট আব্দুল্লাহ আল মামুন হীরা, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিফজুর রহমান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী জাফরুল ইসলাম। ভোটের হিসেব-নিকেশে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থীদের বড় প্রভাব ফেলার সম্ভাবনা রয়েছে। বিদ্রোহীদের নিয়ে আলোচনা চলছে সর্বত্র। স্বতন্ত্র প্রার্থীরাও তাদের মতো করে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। ভোটারদের নানা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন তারাও। নির্বাচিত হলে পৌরবাসীর ভাগ্যের উন্নয়নে কাজ করার অঙ্গীকার করছেন।

একইভাবে নিজ নিজ প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করে পাড়া-মহল্লা চষে বেড়াচ্ছেন কাউন্সিলর প্রার্থীরাও। ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ পুরুষ কাউন্সিলর পদে ৩৩ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৯ জন লড়াইয়ে রয়েছেন। সবাই নিজ নিজ প্রতীকে ভোট দিতে ভোটারদের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছেন। পুরুষের তুলনায় পিছিয়ে নেই নারী প্রার্থীরা। তারাও ঘরে ঘরে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন।

আগামী ৩০ জানুয়ারি দেশের সীমান্তবর্তী সিলেটের জকিগঞ্জ পৌরসভায় ভোটগ্রহণ হবে। এবার পৌরসভায় মোট ভোটার ১২ হাজার ৩৪৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৬ হাজার ৩ জন এবং নারী ৬ হাজার ৩৪২ জন।

সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সাদমান সাকীব বলেন, ‘নির্বাচনে এখন পর্যন্ত উৎসবমুখর পরিবেশ রয়েছে। সকল প্রার্থীই নির্বাচনের আচরণবিধি মেনে প্রচার করছেন। ভোটের আমেজ বজায় রাখতে সব প্রার্থীই আন্তরিক।’

0Shares