মোদির সফরবিরোধী আন্দোলন দুই দেশের সম্পর্কে প্রভাব ফেলবে না

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ৩:৩৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৫, ২০২১

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতা করে কয়েকটি সংগঠনের আন্দোলন দুই দেশের সম্পর্কে কোনো প্রভাব ফেলবে না বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

আজ বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) রাজধানীর গুলশান-২ নম্বরের বিচারপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ পার্কে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আয়োজিত প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। মোদির সফরবিরোধী আন্দোলন দুই দেশের সম্পর্কে প্রভাব ফেলবে না

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতা করে কয়েকটি সংগঠনের আন্দোলন দুই দেশের সম্পর্কে কোনো প্রভাব ফেলবে না বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

আজ বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) রাজধানীর গুলশান-২ নম্বরের বিচারপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ পার্কে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আয়োজিত প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফরে একাধিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হতে পারে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘মোদির সফর মূলত বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস এবং বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী নিয়ে। তবুও আমাদের পক্ষ থেকে কিছু বিষয় থাকবে। এক দেশের প্রধানমন্ত্রী বা রাষ্ট্রপতি যখন আরেক দেশে সফরে যান তখন এমন চুক্তি স্বাক্ষরের বিষয় থাকে, এবারও থাকবে।

ড. মোমেন বলেন, ‘ইতোমধ্যে কিছু বিষয়ে উভয় পক্ষ সমঝোতায় এসেছে। পাঁচটির বেশি চুক্তি স্বাক্ষরিত হতে পারে। যেগুলো নিয়ে এখনও সমঝোতা আসেনি, সেগুলো নিয়েও দেন-দরবার চলছে। ড. মোমেন বলেন, ‘সব মতের মানুষের বক্তব্য প্রকাশের স্বাধীনতা আছে। কেউ কেউ হয়তো মোদির সফরের বিরোধিতা করছেন। তবে দুই দেশের বেশির ভাগ সাধারণ মানুষ এতে খুশি। প্রেসক্লাবের সামনে দুই-চার জন এনে বিক্ষোভ করলে কী হবে? দুই দেশের সম্পর্কে সেটির কোনো প্রভাব পড়বে না। রাষ্ট্রীয় অতিথি যাঁরা ঢাকা সফর করছেন বা করবেন, বাংলাদেশ সরকার তাঁদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করবে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফরে একাধিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হতে পারে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘মোদির সফর মূলত বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস এবং বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী নিয়ে। তবুও আমাদের পক্ষ থেকে কিছু বিষয় থাকবে। এক দেশের প্রধানমন্ত্রী বা রাষ্ট্রপতি যখন আরেক দেশে সফরে যান তখন এমন চুক্তি স্বাক্ষরের বিষয় থাকে, এবারও থাকবে।

ড. মোমেন বলেন, ‘ইতোমধ্যে কিছু বিষয়ে উভয় পক্ষ সমঝোতায় এসেছে। পাঁচটির বেশি চুক্তি স্বাক্ষরিত হতে পারে। যেগুলো নিয়ে এখনও সমঝোতা আসেনি, সেগুলো নিয়েও দেন-দরবার চলছে।

0Shares