সহযোদ্ধার গুলিতে জনসংহতির কর্মী নিহত

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ১:৫৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩১, ২০২১

রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে নিজ দলের সহযোদ্ধার হাতে খুন হয়েছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (এমএনলারমা) কর্মী বিশ্বমিত্র চাকমা ওরফে যুদ্ধ চাকমা (৩৫)।

মঙ্গলবার দিবাগত রাতে (৩১ মার্চ) উপজেলার সংগঠনটির নিয়ন্ত্রিত এলাকা হিসেবে পরিচিত বাবুপাড়া এলাকায় এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। বুধবার সকালে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে। পরে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ খাগড়াছড়ি হাসপাতালে পাঠানো হয়।

বাঘাইছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান ও জনসংহতি সমিতির (এমএন লারমা) কেন্দ্রীয় কমিটির আইন বিষয়ক সম্পাদক সুদর্শন চাকমা জানান, বিশ্বমিত্র আমাদের দলের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত এবং হত্যাকারী সুজনও আমাদের কর্মী। কিন্তু সুজন গোপনে সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জনসংহতি সমিতির সঙ্গে আঁতাত করেছিল, সেটা আমরা জানতাম না। গত রাতে একসঙ্গে থাকাকালে সে বিশ্বমিত্র চাকমাকে (যুদ্ধ) গুলি করে হত্যা করে পালিয়ে যায়। এরপর সে সন্তু লারমার দলে যোগ দিয়েছে বলে জেনেছি। নিহত বিশ্বমিত্র চাকমা সহযোগী সংগঠন ‘যুব সমিতি’র রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিল বলে জানান তিনি।

তবে সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জনসংহতি সমিতির উপজেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ত্রিদিব চাকমা জানিয়েছেন, তারা এসবের কিছুই জানেন না। এটা তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়।

বাঘাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন খান জানান, জনসংহতি সমিতির (এমএন লারমা) অভ্যন্তরীণ বিরোধে একজন মারা যাওয়ার খবর পেয়ে আমরা মরদেহ উদ্ধার করি এবং মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছি। এ ঘটনায় নিহতের স্বজনরা মামলা করবেন বলে জানিয়েছেন। মামলার পর আমরা পরবর্তী পদক্ষেপ নেব।

0Shares