রুনার চোখে জল

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ১০:১৭ অপরাহ্ণ, মে ২০, ২০২১
ডায়ালসিলেট ::আমার লেখা কখন কার হৃদয়ে দাগ কাটে তা জানি না। জীবনের একটি সময় বুঝি সবকিছুই স্তিমিত হয়ে যায়। কিন্তু কোন লেখকের লেখা স্তিমিত হয়ে যায় না বলে আমার বিশ্বাস। নিজের ভেতরে যতই গুটিয়ে থাকে না কেন সে আলোয় বেরিয়ে আসবেই। কয়েক বছর আগে আমার একটি লেখা পড়তেই রুনার চোখে জল আসে। সেই অনুভুতি জানাতে রুনা দেখা করতে ছুটে আসে। আমার লেখায় এরকম পাঠকবক্ত দেখে অবাক হই। সেই থেকেই রুনা সাথে পরিচয়। সেদিন রুনার ভাবীর ডেলিভারি পেইন ওঠতেই কল করে জানায় ফ্রিডমে আসতে চাচ্ছে। আমি ফ্রিডমে আছি চলে আসো। আসার পর রুনা জানায় আপু-ফ্রিডম হসপিটালে সেবার ভরসা আছে আর সেখানে আমি থাকায় টেনশনমুক্ত। আমিও তাদের সেই ভরসাকে নিশ্চিতে থাকতে বলে সবদিকে খেয়াল রাখি।

হসপিটালে প্রত্যেক রোগিকে সর্বোচ্চ আন্তরিকতা সেবা দেবার জন্য প্রতিমুহুর্তে আমাদের প্রচেষ্টা থাকে। এদিকে সুনামগঞ্জ ছাতক থেকে আসার রোগি নরমাল ডেলিভারিতে এক নবজাতক জন্ম হয়েছে। মা ও সন্তান সুস্থ আছেন। সবার জন্য

শুভ কামনা
লেখক ::তাসলিমা খানম বীথি
0Shares