‘সরকারের উদাসীনতায় রূপগঞ্জে এতগুলো প্রাণ গেল’

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ৪:১৫ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৩, ২০২১

ডায়ালসিলেট ডেস্ক;:বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, সরকারি দপ্তরগুলোর উদাসীনতা আর নজরদারির অভাবে রূপগঞ্জের কারখানায় ভয়াবহ এই দুর্ঘটনা ও এতগুলো প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠানের সমান দায়ভার রয়েছে এই গণহত্যার পিছনে। এতো বড় ভবনে দুটি মাত্র সিঁড়ি, আবার একটি ছিল তালাবদ্ধ। এ কারণে শ্রমিকরা বের হতে না পারায় এতোগুলো প্রাণ অকালে ঝরে গেছে। নজরুল ইসলাম খান বলেন, এসব দেখার জন্য সরকারের অনেকগুলো প্রতিষ্ঠান রয়েছে। তারা যদি ঠিকমতো কাজ করতো তাহলে বিশ্ববাসী এতো লাশ দেখতো না। এসময় তিনি বলেন, মালিক অধিক মুনাফার লোভে এখানে ১০/১২ বছরের বাচ্চা দিয়ে কাজ করাতো। সরকার বলে- দেশ উন্নত হয়েছে অথচ বিশ্বের অনেক গুরুত্বপূর্ণ সংস্থার রিপোর্ট বলছে, দেশের কারখানাগুলোতে ৪০ লাখ শিশু শ্রমিক কাজ করে।

তিনি আহতদের সুচিকিৎসা এবং নিহতের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দাবি করেন। পাশাপাশি দুর্ঘটনা কবলিত আহত এবং নিহত প্রত্যক পরিবারকে বিএনপির পক্ষ থেকে যথাসম্ভব সহযোগিতার আশ্বাস দেন। মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে হাসেম ফুডস এন্ড বেভারেজ কারখানায় বিএনপির প্রতিনিধি দলের প্রধান হয়ে পরিদর্শনে এসে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন,
প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন, ঢাকা বিভাগের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট আব্দুস সালাম, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া দিপু, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহবায়ক এডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার, নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক খোকন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি নাসির উদ্দিন, রূপগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মাহফুজুর রহমান হুমায়ন প্রমুখ।

ডায়ালসিলেটএম/১১

0Shares