কীভাবে কাজ করে পেগাসাস স্পাইওয়্যার?

dial dial

sylhet

প্রকাশিত: ১০:২২ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৯, ২০২১

ডায়ালসিলেট ডেস্ক::ইসরাইলি সফটওয়ার ব্যবহার করে দেশে দেশে ফোনে আড়িপাতা, হ্যাক করার ঘটনা সামনে আসার পর তোলপাড় তৈরি হয়েছে সারা দুনিয়ায়। রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক থেকে শুরু করে নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ শিকার হয়েছেন এই হ্যাকিংয়ের। কীভাবে কাজ করে পেগাসাস স্পাইওয়ার তা নিয়েও চলছে নানা আলোচনা। ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকার এক রিপোর্টে বলা হয়েছে,  এটি ইসরায়েলি সংস্থা এনএসও-র তৈরি সফটওয়্যার, যা মোবাইলে আড়ি পাতার অস্ত্র হিসেবে কাজ করে। ফোনে কী কথাবার্তা হচ্ছে, হোয়াটসঅ্যাপে কী আদান-প্রদান হচ্ছে সবই জানা যায়। ফোনে কী তথ্য, নথি, ছবি রয়েছে সেটাও দেখে ফেলা যায় এর মাধ্যমে। অথচ যার মোবাইল হ্যাক করা হয়েছে, তিনি জানতেই পারেন না।

কী ভাবে কাজ করে এই স্পাইওয়্যার?
প্রথমে ফোনে একটি ওয়েবসাইটের লিঙ্ক পাঠানো হয়। তাতে ক্লিক করলেই মোবাইলে পেগাসাস ইনস্টল হয়ে যায়। এ ছাড়া হোয়াটসঅ্যাপে ভয়েস কল বা ভিডিও কল করেও পেগাসাস ঢোকানো যায়।

কারা ফাঁস করল এই স্পাইওয়্যারের কথা?
২০১৯ সাল থেকে ১৬টি সংবাদমাধ্যম মিলে ‘পেগাসাস প্রোজেক্ট’ নামে একটি তদন্ত করেছিল। রবিবার সেই রিপোর্টের কিছু অংশ সামনে এসেছে।

আক্রান্ত কারা?
ভারতে দু’জন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, তিন জন বিরোধী নেতা-নেত্রী, এক জন সাংবিধানিক পদাধিকারী, চল্লিশের বেশি সাংবাদিক, বহু ব্যবসায়ী ও শিল্পপতি, নিরাপত্তা সংস্থার বর্তমান ও প্রাক্তন প্রধান, সমাজকর্মী, আমলা, আইনজীবীরা আক্রান্ত এই স্পাইওয়্যারে। মোদী সরকার জানিয়েছে, ব্যক্তি পরিসরের মৌলিক অধিকারের প্রতি সরকার দায়বদ্ধ। নির্দিষ্ট কারও উপরে সরকারি নজরদারির অভিযোগ ভিত্তিহীন। ফোনে আড়ি পাতা, হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজে নজরদারিতে সরকারি অনুমতি লাগে। আইন মেনেই ফোনে আড়ি পাতা হয়। ২০১৯-এর অক্টোবরে ফেসবুকের মালিকানাধীন সংস্থা হোয়াটসঅ্যাপ জানায়, চারটি মহাদেশের প্রায় ১৪০০ জনের মোবাইল পেগাসাসের মাধ্যমে হ্যাক করা হয়েছে।

ডায়ালসিলেট এম/৮

0Shares