‘অগ্নি নিরাপত্তা বিষয়ে প্রতিষ্ঠান মালিকদের প্রাথমিক উদ্যোগ নিতে হবে’

প্রকাশিত: ৮:০৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৬, ২০২১

‘অগ্নি নিরাপত্তা বিষয়ে প্রতিষ্ঠান মালিকদের প্রাথমিক উদ্যোগ নিতে হবে’

ডায়ালসিলেট ডেস্ক:;প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা এবং সংসদ সদস্য সালমান এফ রহমান বলেছেন, বাণিজ্যিক ভবন মালিক, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও দোকান মালিকদের অগ্নি নিরাপত্তা বিষয়ে প্রাথমিক উদ্যোগ নিতে হবে। ব্যবসায়ীরা নিজ উদ্যোগে ফায়ার সেফটি নিশ্চিত না করলে আমরা চাপ প্রয়োগ করবো। বৃহস্পতিবার ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের নগরভবনে আয়োজিত ‘অগ্নি নিরাপত্তা-আমাদের করনীয়’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। সালমান এফ রহমান বলেন, আমরা কেউ চাই না যে অগ্নিকাণ্ড কিংবা দুর্ঘটনা ঘটুক আর আমাদের জান মালের ক্ষতি হোক। ব্যবসায়ীরাই ভালো জানেন যে, আপনাদের প্রতিষ্ঠানে কোথায় ‘রিস্ক’ আছে। একজন পাবলিক যখন আপনাদের দোকানে আসছে তখন তার নিরাপত্তারর দায়িত্ব কিন্তু আপনার। সে আস্থা নিয়েই আপনাদের দোকানে ঢুকছে যে তিনি এখানে নিরাপদ। তাই প্রাথমিক দায়িত্ব আপনারা গ্রহণ করুন। যা সমস্যা আছে তা আমাদের জানান আমরা সমাধানের উদ্যোগ নেবো। তিনি বলেন, ফায়ার সেফটি নিশ্চিত করতে দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনা, কার্যক্রম জরুরি। তবে আমাদের শর্ট টার্ম কিছু কাজও কিন্তু আছে। তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী ফায়ার সেফটি বিষয়ক কমিটি গঠন করে দেয়ার পর আমাদের জাতীয় কমিটির কাজ শুরু হয়েছে। বিভিন্ন স্থানে সাব কমিটির কাজ চলছে। এই কমিটিতে বিশেষজ্ঞদের মতামত ও তাদেরকে সম্পৃক্ত করা হচ্ছে। এখন ফায়ার সেফটি নিশ্চিত করতে বিভিন্ন স্থানে যেতে হয় অনেকে এই ভোগান্তির জন্য ফায়ার সেফটি নিশ্চিত করতে চায় না। আমরা চাই ফায়ার সেফটি নিশ্চিত করতে একজনকে যেন বিভিন্ন জায়গায় না গিয়ে এক জায়গা থেকেই যেন সকল সেবা পায়। সবাইকে নিজ নিজ মার্কেটের অগ্নি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। কারও উপর দায় না চাপিয়ে নিজ নিজ জায়গা থেকে সবাইকে সচেতন হতে হবে। সভায় সভাপতিত্ব করেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, এখন সময় এসেছে ফায়ার সেফটি নিশ্চিত করা। আমাদের সবাইকে সচেতন হয়ে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এজন্য আমরা এলাকা ভিত্তিক সময়সীমা নির্ধারণ করে দেবো। সবাইকে ফায়ার সেফটি বিষয়গুলো নিশ্চিত করতে হবে। অন্যথায় তাদের ট্রেড লাইসেন্সসহ অন্যান্য কোন সুবিধা দেয়া হবে না। মার্কেটে ফায়ার সেফটি না মানলে সেই মার্কেট বন্ধ করে দেয়া হবে। মেয়র বলেন, সম্প্রতি বনানীর চেয়ারম্যান বাড়িতে যে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটলো সেখানে কিন্তু ফায়ার সেফটি ছিল না। অথচ তারা সেখানে বসে বড় বড় ব্যবস্থা পরিচালনা করছে কিন্তু তারা ফায়ার সেফটির বিষয়ে কোন উদ্যোগ নেয়নি। তাই সময় এসেছে আমাদের ফায়ার সেফটি বিষয়টি নিশ্চিত করার। আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআই সভাপতি জসিম উদ্দিন, প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মাকসুদ হেলালী, বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সিনিয়ির সচিব সিরাজুল ইসলাম, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাজ্জাদ হোসাইন, রাজউকের চেয়ারম্যান এ বি এম আমিন উল্লাহ নূরী, ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মমর্তা সেলিম রেজা, স্থপতি ইকবাল হাবীবসহ রাজধানীর বিভিন্ন মার্কেট, শপিংমলের প্রতিনিধিগণ।

ডায়ালসিলেট এম/

0Shares