পিতার সঙ্গে ব্রিটনি স্পিয়ার্সের ‘নির্যাতনমূলক’ সম্পর্ক, দায়িত্ব থেকে ইস্তফা চান পিতা

প্রকাশিত: ৫:২৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৮, ২০২১

পিতার সঙ্গে ব্রিটনি স্পিয়ার্সের ‘নির্যাতনমূলক’ সম্পর্ক, দায়িত্ব থেকে ইস্তফা চান পিতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক;:পিতা জেমস পি. স্পিয়ার্স ও সুপরিচিত পপ সঙ্গীতশিল্পী ব্রিটনি স্পিয়ার্সের মধ্যে সম্পর্কের মারাত্মক অবনতি হয়েছে। এ সম্পর্ককে ‘নির্যাতনমূলক’ বলে অভিহিত করেছেন ব্রিটনি। এমন এক অবস্থায় ব্রিটনির আইনগত দায়িত্ব থেকে ইস্তফা চান তার পিতা। এ জন্য তিনি মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যানজেলেসের আদালতে আবেদন জমা দিয়েছেন। ২০০৮ সাল থেকে ব্রিটনির আর্থিক বিষয় এবং তার জীবনধারা কেমন হবে তা নিয়ন্ত্রণের দায়িত্বে আছেন পিতা জেমস পি. স্পিয়ার্স। এই গ্রীষ্মের শুরুতে তিনি বলেছিলেন, দায়িত্ব থেকে সরে যাবেন। অবশেষে মঙ্গলবারে আদালতে দাখিল করা আবেদনে তিনি বলেছেন, বর্তমানে তিনি গুরুত্বরভাবে ভাবছেন, এই দায়িত্ব তার পালন করা আর উচিত হবে কিনা। এ খবর দিয়েছে অনলাইন নিউ ইয়র্ক টাইমস ও অনলাইন বিবিসি।

কিন্তু জেমস পি. স্পিয়ার্সের এই অবস্থান তার পূর্বের অবস্থানের বিপরীত। এখন থেকে ১৩ বছর আগে ব্রিটনির মানসিক স্বাস্থ্য এবং তার মাদক ব্যবহার নিয়ে যখন উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়, তখন তিনি ঘোষণা করেছিলেন যে, তার মেয়ের সর্বোত্তম স্বার্থের জন্য অভিভাবত্বের দায়িত্ব নিচ্ছেন। কিন্তু গত মাসে তিনি বলেন, এই গায়িকার আর্থিকসহ অন্যান্য বিষয় দেখাশোনার দায়িত্ব থেকে সরে যাবেন তিনি, যাতে নতুন একজন রক্ষক বা তত্ত্বাবধায়কের হাতে দায়িত্ব দিয়ে যেতে পারেন। তিনি এও জানিয়েছিলেন যে, তাৎক্ষণিকভাবে সরে যাবেন না। এখন পর্যন্ত তিনি সরাসরি একথা বলেননি যে এই দায়িত্ব একেবারে বাতিল করে দেবেন। তার আইনজীবী ভিভিয়েন লি থোরিন বলেছেন, বার বার জেমস পি স্পিয়ার্স বলেছেন, তিনি তার মেয়ের ভাল চান। জেমস পি স্পিয়ার্সের পক্ষে দাখিল করা আবেদনে তিনি লিখেছেন, যদি ব্রিটনি স্পিয়ার্স তার পিতার তত্ত্বাবধান বাতিল হোক এমনটা চান এবং মনে করেন তিনি নিজের জীবন নিজেই চালিয়ে নেবেন, তাহলে জেমস পি. স্পিয়ার্স বিশ্বাস করেন যে, ব্রিটনির সেই সুযোগ নেয়া উচিত।

ওদিকে ৩৯ বছর বয়সী ব্রিটনি স্পিয়ার্স এখন পর্যন্ত পিতার তত্ত্বাবধান থেকে বেরিয়ে আসার বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে নিজে কোনো ফাইল জমা দেননি। তবে তিনি বিচারকের কাছে আহ্বান জানিয়েছেন যে, তার এস্টেটের তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে তার পিতাকে সরিয়ে দেয়া উচিত। পিতাকে ওই দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়ার জন্য গত দু’বছরে দুবার অনুরোধ করেছিলেন তিনি। ব্রিটনি তার পিতার সঙ্গে নিজের সম্পর্ককে ‘নির্যাতনমূলক’ বলে বর্ণনা করেছেন। পাশাপাশি পিতার ব্যবস্থাপনায় তিনি পারফর্ম করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। মাদকে আসক্ত ব্রিটি দু’মাস আগে আদালতে সাক্ষ্য দেন। একে বোমশেল সাক্ষ্য বলে অভিহিত করা হয়। এর দু’মাস পরেই পিতা জেমস পি. স্পিয়ার্স আদালতে ওই ফাইল জমা দিয়েছেন।

ডায়ালসিলেট এম/

0Shares