এমপি হতে ‘পদত্যাগী’ তাঁরা

প্রকাশিত: ৪:৩৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৯, ২০২৩

এমপি হতে ‘পদত্যাগী’ তাঁরা

ডায়াল সিলেট ডেস্ক :: স্থানীয় সরকারের দায়িত্বে থাকা অবস্থায় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সুযোগ না থাকায় সিলেটে অনেকেই পদত্যাগ করে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করছেন। এর মধ্যে কেউ আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন আবার কেউ মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হতে পদত্যাগ করছেন।

 

ইতোমধ্যে সিলেট বিভাগে দুইজন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও একজন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদত্যাগ করেছেন। আজকালের মধ্যে আরও কয়েকজনের পদত্যাগের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানা গেছে।

 

যারা ইতোমধ্যে পদত্যাগ করেছেন তাদেও পদত্যাগপত্র গ্রহণ করে পদ শূন্য ঘোষণা করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। স্থানীয় সরকার বিভাগ সূত্র এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

 

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন। এই সময়ের মধ্যে পদত্যাগকারীর সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আভাস দিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

 

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার লক্ষ্যে সর্বপ্রথম স্থানীয় সরকারের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করেন শাল্লা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মাহমুদ চৌধুরী (আল আমিন চৌধুরী)। দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার আগেই তিনি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগ করেন। দল অবশ্য তাকে নিরাশ করেনি। শেষ পর্যন্ত সুনামগঞ্জ-২ আসন থেকে আল আমিন চৌধুরীই আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পান।

 

এই আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য প্রয়াত সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের স্ত্রী জয়া সেনগুপ্তা এবার দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত হলেও তিনি স্বতন্ত্র নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছেন।

 

মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে দলীয় মনোনয়ন চেয়েছিলেন কুলাউড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ এ কে এম সফি আহমদ সলমান। আসনটিতে নৌকার টিকেট নিশ্চিত করেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও বিসিবির পরিচালক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল।

 

দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন সফি আহমদ সলমান। সোমবার (২৭ নভেম্বর) তিনি কুলাউড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ও তার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছে।

 

সিলেট বিভাগের মধ্যে সর্বশেষ স্থানীয় সরকারের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করেছেন হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. মুশফিক হোসেন চৌধুরী। হবিগঞ্জ-১ আসন থেকে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. মুশফিক হোসেন চৌধুরী।

 

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার লক্ষ্যে তিনি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেন। মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মোহাম্মদ সামছুল হক স্বাক্ষরিত এক পত্রে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। ওই পত্রে হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য সৈয়দ মো. শামীম আনোয়ারকে অস্থায়ী চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

 

এই আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য দেওয়ান শাহনওয়াজ গাজী এবার আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাননি। তবে শেষ পর্যন্ত তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার গুঞ্জন রয়েছে।

 

0Shares